মহেশপুরে ‘প্রেমিকের’ বাড়িতে অবস্থান

আপডেট: 08:11:44 11/03/2018



img

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : দীর্ঘ দেড় বছর ধরে চলা সম্পর্কের পর বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে পাঁচদিন ধরে অবস্থান করছেন এক কলেজছাত্রী। তার অবস্থানের খবর পেয়ে কথিত প্রেমিক সাজন (২১) গা-ঢাকা দিয়েছেন।
সাজন জলুলী স্কুলপাড়ার আবুল কালাম আজাদ ওরফে কালুর ছেলে। তার প্রেমিকাও একই এলাকার বাসিন্দা।
ইসমতারা জানান, দীর্ঘ দেড় বছর ধরে জলুলী গ্রামের আবুল কালাম আজাদের ছেলে সাজনের সঙ্গে তার সম্পর্ক। সাজন বিভিন্ন সময় বিয়ের কথা বলে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছেন। কিন্তু এখন বিয়ে নিয়ে টালবাহানা শুরু করেছেন।
তিনি আরো বলেন, ‘গত বুধবার দুপুরে যাদবপুর কলেজ থেকে আসার সময় সাজন আমাকে তার এক আত্মীয় বাড়ি মকরধ্বজপুর গ্রামে নিয়ে যায়। বিষয়টি এলাকার লোকজন জেনে ফেললে সাজন আমাকে ফেলে পালিয়ে আসে। পরে রাতে আমি বাড়িতে যাই। কিন্তু আমাকে বাড়িতে উঠতে দেয়নি আমার পরিবারের সদস্যরা। তাই আমি সাজনের বাড়িতে চলে এসেছি।’
মেয়েটি অভিযোগ করে বলেন, ‘গত তিনদিন ধরে সাজনের পরিবারের লোকজন বিয়ে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন স্থানে আমাকে নিয়ে বেড়াচ্ছে।’
যাদবপুর ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিয়ে দেওয়ার জন্য কাজী অফিসে গেলে ছেলের বয়স চার মাস কম হওয়ায় কাজী বিয়ে পড়াতে রাজি হননি। তবে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে।
সাজনের বাবা আবুল কালাম আজাদ ওরফে কালু জানান, দু’পক্ষের মধ্যে সমঝোতা শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আজ অথবা কাল বিয়ে হবে।

আরও পড়ুন