মাওলানা সাদ ঢাকায়, ঠেকাতে বিমানবন্দরে বিক্ষোভ

আপডেট: 03:29:52 10/01/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : দিল্লির নিজামুদ্দিনে তাবলিগের মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভি ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেছেন। টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে দিল্লি থেকে তাবলিগ জামাতের কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভির বাংলাদেশে আগমন ঘিরে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় বিক্ষোভ করছে এই মুসলিম সংঘের পাঁচ শতাধিক কর্মী।
বিমানবন্দর থানার ওসি নূর এ আজম জানান, মাওলানা সাদের ঢাকা পৌঁছানোর কথা বুধবার দুপুরের পর। তার আসার প্রতিবাদে তাবলিগ জামাতের একটি অংশ সকাল নয়টার পর থেকেই বিমানবন্দর এলাকায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।
“উনার আসা নিয়ে তাবলিগ জামাতে দুটি গ্রুপ হয়েছে। একটি গ্রুপ তার আসার বিরোধিতা করছে। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছি।”
স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তাবলিগ জামাতের ওই অংশটি সকালে ওই এলাকার বায়তুস সালাম জামে মসজিদের বাইরে জড়ো হয়। সেখানে তারা বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু করলে বিমানবন্দর সড়কে তৈরি হয় যানজট।
পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে গেলেও বিমানবন্দর সড়কের ওই বিক্ষোভ দুপুরের পরও চলতে থাকে। ফলে যানজটের প্রভাব ছড়িয়ে পড়ে উত্তরা পর্যন্ত।
ভারতীয় উপমহাদেশের সুন্নি মতাবলম্বী মুসলমানদের বৃহত্তম ধর্মীয় সংঘ তাবলিগ জামাতের মূল কেন্দ্রে বা মারকাজ দিল্লিতে। কেন্দ্রীয় ওই পর্ষদকে বলা হয় নেজামউদ্দিন, যার ১৩ জন শুরা সদস্যের মাধ্যমেই উপমহাদেশে তাবলিগ জামাত পরিচালিত হয়।
এই পর্ষদের সদস্য মাওলানা সাদ সম্প্রতি নিজেকে তাবলিগের আমির দাবি করে বসেন। ফলে তার বাংলাদেশে আসা নিয়ে দেশে তাবলিগের মূল দায়িত্বশীলদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দেয়।
এর জের ধরে বাংলাদেশে তাবলিগের কেন্দ্রস্থল কাকরাইলে গত নভেম্বরে দুই দল কর্মীর মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। ওই ঘটনার পর বাংলাদেশে তাবলিগের ‘মুরুব্বিরা’ ভবিষ্যতে এ ধরনের পরিস্থিতি এড়াতে একটি উপদেষ্টা কমিটি করেন।
ওই উপদেষ্টা কমিটির একজন সদস্য মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস বলেন, “শুধু এখানেই নয়, সারা দেশেই উনার আসার প্রতিবাদে মুসল্লিরা বিক্ষোভ করছেন।”

এদিকে, দিল্লির নিজামুদ্দিনে তাবলিগের মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভি ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছেছেন। বুধবার (১০ জানুয়ারি) দুপুর ১২টা ৩০ মিনিটে টিজি-৩২১ ফ্লাইটে করে তিনি ঢাকায় পৌঁছান।
বিমানবন্দররে এক আর্মড পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘মাওলানা সাদ কান্ধলভী ঢাকায় এসেছেন। তিনি ভিআইপি লাউঞ্জে অপেক্ষা করছেন।’
প্রসঙ্গত, দিল্লির নিজামুদ্দিনের ‘বিতর্কিত’ মুরব্বি মাওলানা মুহাম্মদ সাদের আসন্ন বিশ্ব ইজতেমায় আসার বিরোধিতা করছেন বাংলাদেশ-ভারতের তাবলিগ-জামাতকর্মী ও কওমিপন্থী আলেমদের একাংশ। তারা বলছেন, দারুল উলুম দেওবন্দ থেকে সাদের ‘বিতর্কিত’ বক্তব্যের কারণে তার সঙ্গে কাজ করতে নিষেধ করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আহমদ শফীসহ বাংলাদেশের সিনিয়র আলেমরাও চান, বিশ্ব ইজতেমায় সংঘর্ষ এড়াতে সাদ ও তার অনুসারী বা বিরোধীরাও যেন ইজতেমায় অংশ না নেন। যদিও তাবলিগের শুরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম, মোহাম্মদ খান শাহাবুদ্দীন নাসিম, অধ্যাপক ইউনূস শিকদার, মাওলানা মোশাররফ হোসাইন সা’দের ঢাকা সফরের পক্ষে রয়েছেন।
সূত্র : বিডিনিউজ, বাংলা ট্রিবিউন