মাগুরায় আরেক ‘বৃদ্ধ শিশু’

আপডেট: 05:34:14 29/08/2018



img
img

মাগুরা প্রতিনিধি : বায়েজিদের পর আবারো বিরল প্রজেরিয়া রোগে আক্রান্ত শিশুর সন্ধান মিলেছে মাগুরায়।
১৩ বছর বয়সী আল আহাদ নামে অনেকটা বৃদ্ধের মতো চেহারা ও শারীরিক গঠনের শিশুটি মাগুরা শহরতলীর পুলিশ লাইনপাড়ার জাহিদুর রহমানের ছেলে। নানা শারীরিক সমস্যায় আক্রান্ত শিশুটিকে তার মা মঙ্গলবার দুপুরে মাগুরা সদর হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন।
চিকিৎসক বলছেন, তার শরীরে সার্জারি সমস্যা রয়েছে। তবে শিশুটি বিরল প্রজেরিয়া রোগে আক্রান্ত।
শিশুটির মা আসমা সুলতানা বলেন, তার দুটি সন্তানের মধ্যে আল অহাদ বড়। বর্তমান তার বয়স ১৩ বছর। জন্মের সময় তার চেহারা ও শারীরিক গড়ন অস্বাভাবিক ছিল। পরে মাগুরা ও ঢাকায় বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসা করালেও সে আর স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসেনি। এখন তার পায়ের সমস্যার জন্য মাগুরা সরকারি হাসপাতালে এসেছেন সার্জারি চিকিৎসক সফিউর রহমানের কাছে।
মাগুরা সদর হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক শফিউর রহমান বলেন, আল আহাদ নামে যে শিশুটি তার কাছে এসেছে তার শরীরে সার্জারি সমস্যা রয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
ডা. শফিউর বলেন, আল আহাদের চেহারা ও শারীরিক গঠন দেখে তিনি নিশ্চিত সে বিরল প্রজেরিয়া রোগে আক্রান্ত।
একই হাসপাতালের মেডিসিন বিশেষজ্ঞও তার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন বলে জানান ডা. শফিউর রহমান।
প্রজেরিয়া রোগে আক্রান্ত শিশু আল আহাদের শারীরিক গড়ন অস্বাভাবিক হলেও সে সব কিছু বুঝতে পারে ও কথা বলতে পারে। তার সঙ্গে আলাপকালে সে চাপা কণ্ঠে তার নাম ও বাবার নাম এবং সে আইডিয়াল স্কুলে পড়ে বলে জানায়।
সদর হাসপাতালের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. দেবাশিষ বিশ্বাস বলেন, আল আহাদ জটিল প্রজেরিয়া রোগে আক্রান্ত। জিনগত সমস্যার কারণে শিশুরা বিরল এ রোগে আক্রান্ত হয়। যে রোগের তেমন কোনো চিকিৎসা নেই। এ রোগে আক্রান্তরা দ্রুত বার্ধক্যের দিকে ধাবিত হয়। যে কারণে আক্রান্তরা ১৫ থেকে ২০ বছর জীবিত থাকে। সাধারণত ২৪ ঘণ্টায় মানুষের আয়ু একদিন কমে। কিন্তু প্রজেরিয়া রোগে আক্রান্ত রোগীদের আয়ুস্কাল ২৪ ঘণ্টায় ছয় থেকে আট দিন কমে।

আরও পড়ুন