মাগুরায় আসক কর্মীকে পিটিয়ে নারী অপহরণ

আপডেট: 09:09:14 07/03/2018



img

মাগুরা প্রতিনিধি : আইন ও সালিশ (আসক) কেন্দ্রের হেফাজতে থাকা এক নারীকে অস্ত্রের মুখে বাস থেকে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা।
এসময় দুর্বৃত্তদের মারপিটে গুরুতর আহত হয়েছেন আইন সালিশ কেন্দ্রের এক নারী কর্মী। তাকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপহরণ ও মারপিটের এ ঘটনাটি ঘটেছে আজ বুধবার বিকেলে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মাগুরা সদর উপজেলা লক্ষ্মীকন্দর গ্রামে।
মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি আইন ও সালিশ কেন্দ্রের মাঠকর্মী শামছুন্নাহার জানান, মাগুরা শহরের পূর্বপাড়ার বাসিন্দা রকিবুল ইসলাম রিপুর সপ্তম স্ত্রী ফারজানা আক্তার রানী স্বামীর মারপিট ও নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে এ বছরের শুরুর দিকে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান। গত ৪ মার্চ তিনি ঢাকার লালমাটিয়ায় আইন ও সালিশ কেন্দ্রের শেল্টারহোমে আশ্রয় নেন। ইতিমধ্যে স্বামী রকিবুল ইসলাম রিপু মাগুরা সদর থানায় তার স্ত্রী ফারজানার বিরুদ্ধে চুরি ও ব্যাভিচারের মামলা করেন। এই মামলার আসামি হিসেবে মাগুরা সদর থানা পুলিশ ৬ মার্চ ফারজানাকে ঢাকা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের শেল্টারহোম থেকে মাগুরায় নিয়ে আসে। আইন ও সালিশ কেন্দ্রের প্রতিনিধি ও জিম্মাদার হিসেবে তিনিও ফারজানার সঙ্গে মাগুরা আসেন। আজ ৭ মার্চ বুধবার দুপুরে ফারজানাকে আদালতে হাজির করা হয়। তিনি আইনজীবীর মাধ্যমে ফারজানার জামিন আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন। ফারজানার ইচ্ছানুযায়ী আদালত তাকে আইন ও সালিশ কেন্দ্রে জিম্মায় দেন।
শামছুন্নাহার জানান, জামিনলাভের পর পুলিশ হেফাজতে তারা বিকেল সাড়ে চারটার দিকে মাগুরা বাসটারমিনাল থেকে ঈগল পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন। বাসটি মাগুরা সদরের লক্ষ্মীকন্দর এলাকায় পৌঁছালে একটি মাইক্রোবাস ব্যারিকেড দিয়ে বাসটিকে থামায়। এর পর রিপুর নেতৃত্বে ৪-৫ জনের একটি অস্ত্রধারী দুর্বৃত্ত দল ভেতরে ঢুকে তাকে ও ফারজানাকে বেদম মারপিট করে টেনেহিঁচড়ে বাস থেকে নামিয়ে নেয়। তাকে পিটিয়ে রাস্তার ধারে ফেলে রেখে ফারজানাকে তারা একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
সদর থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) মাহবুব আল হাসান জানান, আসকের প্রতিনিধিসহ অপহৃত ফারজানাকে তাদের চাহিদানুযায়ী পর্যাপ্ত পুলিশি নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেওয়া হয়েছিল। তবে পথে যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে এর জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধার ও অপহরণকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

আরও পড়ুন