মারুফ কামরুলের চারটি কবিতা

আপডেট: 01:49:22 16/06/2017



img

সে তুমি ও আমি

খোলস ঝেড়ে ফেলা সদ্য ভেদ করা ভূ-ত্বকের নবীন অতিথি-
কচি জলপাই রঙা গাঢ় সবুজ,
এরপর ছায়াদার বৃক্ষ; ফুল, ফল কত কী!
সহস্র সবুজের আগমনে আমার হলুদ প্রিয়তা,
কুয়াশার মতো টুপটুপ ঝরে পড়া শীতের সকালে,
অতপর পচা আমিতে হয় জৈবসার কিংবা উনুনের দাহিকা;
ছেলে-বাবা-দাদা সবশেষে গত কেউ
স্বর্ণ নরক নয়ত মৃত্তিকা।




হিসাব

রাত জেগে তারাদের খসে পড়া দেখেছি
গুনেছি কোটি কোটি তারা
বলেছিলে শেষ তারাটির হিসাব শেষে গ্রহণ করবে
এখন পাকা দাড়ি,  চোখ তারা দেখে না
মেঘকে ভালোবেসেছি, কালো, সাদা...
নাতনির কাছে এখনো তারার গল্প শুনি,
আজও  পুব আকাশে ঝলঝলে তরকা উঠেছে!
তুমি দেখেছো?
হয়ত ঘুমিয়ে কাটিয়েছ,  আমার রাত জাগার বদ অভ্যাস এখনো আছে
হিসাবের খাতা খুলি
শেষ তারাটির  হিসেব আজও মেলেনি, আজও নয়...




স্বাধীন

একটি রাতই তো চেয়েছি
আকাশে চাঁদ, ফুরফুরে বাতাস, নদীর কলকলানি, সাথে তুই
এমন একটি রাতের জন্য '৭১ পেরিয়েছি
আজও মেলেনি সে রাত-
ভয় কাটেনি বুঝি ৪৫ বছর পরেও!
তুই আমি সকলে স্বাধীন, সকলে স্বাধীন...




অপেক্ষা

আজও বলার কথাটি হয়নি বলা
আজ কাল পরশু এভাবে চলে গেলো সহস্র রাত
কোকিলের ডাক শুনে
শুনবে বলে প্রতীক্ষায় রেখেছো,
সময় হবে না জানি তোমার
আমার তো ঢের আছে নষ্ট করার সময়
দু কাল গত করেছি, এখনো তোমার অবসর খুঁজি
'অবসর প্রতীক্ষা অপেক্ষা' এরা আপন,খুব আপন...
তাই তো বেঁচে আছি, বলবো বলে
হবে কি বলা!
না-না! আজ বলেই দিচ্ছি
" আমি চললাম, অঢেল সময়ের দেশে
  সাথে প্রতীক্ষা,অপেক্ষা,অবসর নিয়ে
  তোকেও আসতে হবে... আসতে হবে-"