মাহমুদউল্লাহর আশাবাদ

আপডেট: 02:42:59 06/03/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : ডান পাশে মাহমুদউল্লাহ, বাঁ পাশে রোহিত শর্মা, মাঝখানে দিনেশ চান্দিমাল। সংবাদ সম্মেলনে তিন অধিনায়ক বসেছিলেন এভাবেই। বসার আসন হয়তোবা আলাদা হতে পারে। তবে ভালো ক্রিকেট খেলার লক্ষ্যতে তিনজনই যে একমত। মাঠে দারুণ ক্রিকেট উপহার দিয়ে মাহমুদউল্লাহও প্রত্যয় ব্যক্ত করলেন জয়ে ফেরার।
নিদাহাস ট্রফির মঞ্চটাই যে উৎসবের। এই মার্চেই শ্রীলঙ্কা পূরণ করলো স্বাধীনতার ৭০তম বছর। ১৯৯৮ সালে স্বাধীন হওয়ার ৫০ বছর উপলক্ষে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হইয়েছিল এই সিরিজ। আবার যখন নিদাহাস ট্রফি অপেক্ষায় মাঠে গড়ানোর, মাঝে তখন সময় কেটে গেছে ২০ বছর। ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা তো রোমাঞ্চ চেপে না রেখে বলেই দিলেন প্রথম আসরের লড়াই যখন মাঠে তার বয়স তখন মাত্র দশ!
সংবাদ সম্মেলনের শুরুটা হয়েছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি থিলাঙ্গা সামাথিপালার বক্তব্য দিয়ে। মাঝে চান্দিমাল নিজের বক্তৃতায় বাকি দুই দেশের অধিনায়ককে নিজের দেশে জানিয়েছেন স্বাগতম। রোহিত শর্মা মাইক্রোফোন হাতে ধন্যবাদ দিয়ে ব্যক্ত করেছেন নিদাহাস ট্রফিতে দল নিয়ে আশাবাদ।
এরপরেই মাহমুদউল্লাহকে অনুরোধ করা হয় কিছু বলার জন্য। স্বাধীনতার ৭০ বছর পার করা শ্রীলঙ্কাবাসীদের অভিনন্দন জানিয়ে নিজের বক্তব্য শুরু করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। সিরিজে নিজেদের লক্ষ্য নিয়ে মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘ক্রিকেটীয় দৃষ্টিকোণ থেকে আমি বলতে চাই নিজেদের প্রমাণ করার জন্য এটি অনেক বড় মঞ্চ। শেষ দুই বছর ধরে আমরা বেশ ভালো ক্রিকেট খেলছি। আমাদের দল এবং দলের প্রত্যেক সদস্যের জন্য এই সিরিজ অনেক বড় একটা সুযোগ।’
দলের সবাইকে নিজেদের দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে মাহমুদউল্লাহ আশা ব্যক্ত করছেন লড়াইয়ের। বাংলাদেশ দলপতির ভাষ্যে, ‘সবাইকে দায়িত্ব নিয়ে নিজেদের সেরাটা দিতে হবে। আশা করি আমরা দারুণ কিছু দেখাতে পারবো। শ্রীলঙ্কায় আবারো আসতে পেরে ভালো লাগছে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদ এমন সিরিজ আয়োজনের জন্য।’
আজ স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা ও ভারতের ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে নিদাহাস ট্রফির। নিজেদের প্রথম ম্যাচে বৃহস্পতিবার ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।
সূত্র : এনটিভি