যশোরে ছাত্রদল সেক্রেটারির বাড়িতে তাণ্ডবের অভিযোগ

আপডেট: 06:28:24 10/02/2018



img
img
img

স্টাফ রিপোর্টার : পুলিশ যশোর জেলা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবুলের বাড়ির মালামাল ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষতিসাধন করেছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।
শুক্রবার দিনগত রাত সোয়া দুইটার দিকে সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা মোল্যাপাড়ায় বাবুলের নিজ বসতবাড়িতে এঘটনা ঘটে। বাবুল বালিয়াডাঙ্গার মুনসুর মোল্যার ছেলে।
নাজমুল হোসেন বাবুলের মা সাহিদা বেগম সুবর্ণভূমিকে জানান, শনিবার দিনগত রাতে ২০-৩০ জন পুলিশ তাদের বাড়ি ঘেরাও করে। ১০-১২ জন পুলিশ তাদের বাড়ির মধ্যে ঢুকে দরজা খুলে দিতে বলে।
‘আমি এবং আমার মেয়েরা মিলে পুলিশকে জানাই, বাড়িতে কোনো পুরুষ-ছেলে নেই। তার পরেও পুলিশ গেট খুলতে বাধ্য করে। গেট খুলে দিলে পুলিশ আমার বসতবাড়ির পাঁচটির মধ্যে চারটি রুমে ঢুকে তল্লাশির নামে ঘরে থাকা টিভি, শো-কেস, আলমারি, টি-টেবিল, ড্রেসিং টেবিলসহ সব কিছু ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়,’ বলছিলেন সাহিদা।
বাবুলের বোন আসমা খাতুন সুবর্ণভূমিকে জানান, পুলিশ ঘরে ঢুকেই বলে ‘বাবুল কই, কই বাবুল। এসময় চোখের সামনে যা কিছু পায় তা হকিস্টিক দিয়ে পিটিয়ে ভেঙে ফেলে।
তিনি বলেন, ‘আমাদের বসতবাড়ির পাঁচটি রুম। এর মধ্যে একটিতে আমার বোন ছিল, মাত্র পাঁচদিন আগে যার বাচ্চা হয়েছে। শুধু সেই রুমে পুলিশ যায়নি। আর সব রুমের সমস্ত মালামাল তারা ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছে।’
তিনি দাবি করেন, পুলিশি তাণ্ডবে কম করে হলেও দুই লাখ টাকার মালামাল ধ্বংস হয়েছে।
তবে ওই বাড়িতে ভাংচুরের অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ।
কোতয়ালী থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) আবুল বাশার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘পুলিশ নাজমুল হোসেন বাবুলের বাড়িতে যেতে পারে তাকে আটক করতে। তবে ভাংচুরের অভিযোগ সত্যি না। পুলিশ চলে আসার পর প্রতিপক্ষের কেউ হয়তো ভাংচুর করতে পারে।’
যশোর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘যশোর জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবুলের বাড়িতে পুলিশ যেভাবে ভাংচুর করেছে, তা সভ্য সমাজের কোথাও হয় বলে জানা নেই। অতিউৎসাহী কতিপয় পুলিশ সরকারি দলের কর্মীর মতো কাজ করছে।’
রাজনীতিকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করা উচিৎ বলে মন্তব্য করেন অ্যাডভোকেট সাবু।

আরও পড়ুন