যশোরে দায়ের কোপে আহত মোহরার মারা গেছেন

আপডেট: 07:48:55 13/06/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে প্রতিপক্ষের এলোপাতাড়ি কোপে আহত রমজানুল ইসলাম (৪২) মারা গেছেন। মঙ্গলবার দিনগত রাত দেড়টার দিকে যশোর জেনারেল হসাপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার এম আব্দুর রশিদ তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
রমজানুল সদর উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের আলমনগর গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদ মোড়লের ছেলে। তিনি যশোর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে মোহরার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
নিহতের ছেলে রায়হান আজ বুধবার সকালে সুবর্ণভূমিকে জানান, প্রতিবেশী শাহিনুরের কাছ থেকে তার বাড়ি-সংলগ্ন কিছু জমি কিনেছিলেন। কিন্তু তিনি জমির দখল দিচ্ছিলেন না।
শাহিনুরকে ‘মাদকসেবী ও মাদক ব্যবসায়ী’ আখ্যা দিয়ে রায়হান বলেন, ‘তার সঙ্গে আমাদের কোনো বিরোধ ছিল না। সোমবার সকালে আমার বাবা বাড়ির পাশে মাঠে সবজি ক্ষেত দেখতে যান। সেখানে শাহিনুর পূর্বপরিকল্পিতভাবে গাছিদা দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। আমরা খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করি। অবস্থা খুবই গুরুতর হলে ওই দিন সোমবার বেলা ১২টার দিকে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকা ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানেও অবস্থার তেমন উন্নতি হয়নি। ডাক্তারা ভরসা ছেড়ে দিলে আমরা বাবাকে যশোরে নিয়ে আসি। রাত দেড়টার দিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনার পথে তার মৃত্যু হয়।’
যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত ডাক্তার এম আব্দুর রশিদ সুবর্ণভূমিকে বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই রমজানুলের মৃত্যু হয়েছে।
কোতয়ালী থানার ডিউটি অফিসার এসআই অরুণকুমার দাস সোমবার সকালে বলেছিলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠানো হয়েছে।
আর আজ যোগাযোগ করা হলে থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) আবুল বাশার সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘রমজানুলের লাশ মর্গে রাখা হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য।’

আরও পড়ুন