যশোরে দোকান ভাঙচুর ‘অপহরণ’, অবরোধ

আপডেট: 07:31:24 10/03/2019



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর শহরে চাঁদার দাবিতে সন্ত্রাসীরা একটি চশমার দোকান ভাঙচুর করে কর্মচারী মহিতুজ্জামানকে তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করা হচ্ছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করেন ব্যবসায়ীরা।
পরে পুলিশ এসে ওই কর্মচারীকে উদ্ধারে দরকারি ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলে ব্যবসায়ীরা বিক্ষোভ থামান। এর কিছু সময় পর  ‘অপহৃত’ কর্মচারী ফিরে আসেন।
 আজ রোববার দুপুরে শহরের দড়াটানায় ভিশন কেয়ার চশমার দোকানে হামলা ও ‘অপহরণের’ ঘটনাটি ঘটে। ‘অপহৃত’ কর্মচারীর নাম মহিতুজ্জামান।
পুলিশ বলছে, আর্থিক লেনদেনের কারণে মহিতুজ্জামানকে তুলে নেওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে তিনি নিজেই চলে এসেছেন; উদ্ধারের দরকার হয়নি।
ভিশন কেয়ার চশমার দোকানের মালিক তৌফিক আহম্মেদ বলছেন, ‘শহরের পুরাতন কসবা এলাকার পিন্টু নামে এক সন্ত্রাসী আমার দোকানের কর্মচারী মহিতুজ্জামানের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করতো। চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় আজ রোববার বেলা একটার দিকে পিন্টু ও তার আট সহযোগী তিনটি মোটরসাইকেলে করে এসে আমার দোকান ভাঙচুর করে। তারা দোকানের ক্যাশে থাকা নগদ ১৫-২০ হাজার টাকা লুটে নেয়। এসময় তারা দোকান কর্মচারী মহিতুজ্জামানকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়।’
খবর শুনে ব্যবসায়ীরা জড়ো হন শহরের প্রাণকেন্দ্র দড়াটানায়। তারা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।
যশোর সদর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইনসপেক্টর ফিরোজ আহম্মেদ জানান, পিন্টুর সঙ্গে ভিশন কেয়ারের কর্মচারী মহিতুজ্জামানের আর্থিক দেনা পাওনা আছে। ব্যবসায়ীদের মিসগাইড করে বিনা কারণে সড়ক অবরোধ করা হয়েছে; যা বেআইনি।
‘মহিতুজ্জামানকে উদ্ধার করার প্রয়োজন হয়নি। সে নিজে নিজেই চলে এসেছে। বিষয়টি কোতয়ালী থানার ওসি স্যারকে জানানো হয়েছে। তিনি এখন বাইরে আছেন। সন্ধায় থানায় এসে ব্যাবস্থা নেবেন,’ বলেন ইনসপেক্টর ফিরোজ।

আরও পড়ুন