যশোর জেলে বিএনপি নেতার মৃত্যু, তদন্ত দাবি

আপডেট: 03:05:14 12/09/2017



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি বদিউর রহমান (৫০) নামে এক ব্যক্তির (হাজতি নম্বর ৬৪৭০) মৃত্যু হয়েছে।
তিনি বাঘারপাড়া পৌর বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি। বিনাচিকিৎসা ও কারা কর্তৃপক্ষের অবহেলায় এই নেতার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করে বিএনপি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছে। তবে কারাগার কর্তৃপক্ষ এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
স্বজনরা বলছেন, সোমবার দিনগত রাতে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনার পথে বদিউরের মৃত্যু হয়। তিনি বাঘরপাড়া পৌরসভার দুই নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল গনি মিয়ার ছেলে।
বদিউরের চাচা মো. হাসান আলী সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘ঈদের ৬-৭ দিন আগে বাঘারপাড়ায় বিএনপির সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচি পালনকে কেন্দ্র করে উপজেলা সভাপতি টিএস আইয়ুবের অনুসারীদের সঙ্গে আবু তাহের গ্রুপের বিরোধ বাধে। আর ওই বিরোধকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট অপ্রীতিকর ঘটনার প্রেক্ষিতে বাঘারপাড়া থানা পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করে। বদিউর রহমান ওই মামলার আসামি এবং বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত আবু তাহেরের অনুসারী।’
তিনি জানান, পুলিশ ওই মামলায় বদিউরকে গ্রেফতার  করে জেলহাজতে পাঠায় ঈদের ৪-৫ দিন আগে। জেলহাজতে থাকা অবস্থায় সোমবার রাতে বদিউরের মৃত্যু হয়।
যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু তালেব দাবি করেছেন, জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বদিউরের মৃত্যু হয়েছে।
তিনি সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘বাঘারপাড়া থানার একটি মারামারি মামলায় গত ২৬ আগস্ট বদিউর রহমান জেলহাজতে আসেন। ১১ সেপ্টেম্বর সোমবার রাত সোয়া ১১টার দিকে বদিউরের বুকে ব্যথা অনুভূত হয়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।’
হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার কাজল মল্লিক সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘রাত ১১টা ৫০ মিনিটের সময় হাজতি বদিউরকে হাসপাতালে আনা হয়। পরীক্ষা করে দেখা যায়, হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।’
প্রশ্নের জবাবে ডা. মল্লিক বলেন, ‘কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত বলা যাবে না।’
এদিকে, বিএনপি নেতা বদিউরের অকাল মৃত্যুর জন্য যশোর জেলা বিএনপি কারা কর্তৃপক্ষের অবহেলাকে দায়ী করে বলেছে, বিনা চিকিৎসায় তার মৃত্যু হয়েছে।
আজ দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে তাৎক্ষণিকভাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতারা বদিউরের মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানান।
তারা বলেন, অল্প কিছুদিনের মধ্যে বদিউরসহ বিএনপির তিন নেতাকর্মী যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে মারা গেলেন। প্রতিটি ক্ষেত্রেই কারা কর্তৃপক্ষের অবহেলার অভিযোগ ওঠে। কারাগারে মৃত অন্য দুই নেতা হলেন, চৌগাছা উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম শান্তি এবং যশোরের যুবদল নেতা উজ্জ্বল।
সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুল হুদা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন