শিক্ষকের স্কেলের আঘাতে ছাত্রীর চোখ নষ্টের পথে

আপডেট: 03:39:21 23/08/2017



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় ফোয়ারা নামে ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে মারপিট করার অভিযোগে সংশ্লিষ্ট শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত শিক্ষক মুরাদ উপজেলার মনতেজার রহমান মিয়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আইসিটি বিষয়ের সহকারী শিক্ষক।
ঘটনার দশ দিন পর ছাত্রীর চোখ নষ্ট হওয়ার অভিযোগে ফোয়ারার বাবা শরিফুল ইসলাম মঙ্গলবার রাতে মামলা করার পরেই তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, উপজেলার দিকনগর ইউনিয়নের দহকোলা গ্রামের মনতেজার রহমান মিয়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মুরাদ হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তার স্কেলের আঘাতে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী মারিয়াতুছ ফোয়ারার চোখ নষ্ট হয়েছে। বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। যে কারণে ওই শিক্ষককে আটক করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অসাবধনতার কারণে স্কেল ফোয়ারা নামে ওই শিক্ষার্থীর চোখে লাগে। বর্তমানে তার চিকিৎসা চলছে।
এদিকে আহত শিক্ষার্থী ফোয়ারার বাবা শরিফুল ইসলাম জানান, গত ১২ আগস্ট স্কুলে থাকার সময় ফোয়ারার কলমের কালি ওই শিক্ষকের হাতে লেগে যায়। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে তার হাতে থাকা স্কেল দিয়ে ছাত্রীর চোখে আঘাত করেন। এতে চোখে রক্তক্ষরণ হলে প্রথমে তাকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফোয়ারাকে রাজধানীর জাতীয় চক্ষু ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। দু’দিন হলো হাসপাতাল থেকে বাড়িতে আনা হয়েছে তাকে। একমাস পর তাকে আবার ঢাকা নিতে হবে। তবে ফোয়ারার চোখ ঠিক হবে কিনা তা চিকিৎসকরা নিশ্চিত করতে পারেননি।
তিনি আরো জানান, চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য মেয়েকে ভারতে নিলে ভালো হয়।

আরও পড়ুন