শৈলকুপায় বাঁওড়ে ২০ লাখ টাকার মাছ মরেছে

আপডেট: 07:21:58 04/04/2018



img
img

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার নিত্যানন্দনপুর ইউনিয়নে ৫২ একর জমিতে অবস্থিত বাঁওড়ে বিষ প্রয়োগ করে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ২০ লাখ টাকার মাছ নিধনের অভিযোগ উঠেছে।
স্থানীয়রা জানান, আবাইপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন ও তার অংশীদাররা সরকারের কাছ থেকে তিন বছর মেয়াদে বাঁওড়টি ৭৫ লাখ ১৫ হাজার টাকায় লিজ নিয়ে এক বছর ধরে মাছ চাষ করছেন। প্রায় ছয় মাস আগে তারা রুই, মৃগেল, কার্প, তেলাপিয়াসহ বিভিন্ন প্রজাতির সাত লাখ ২০ হাজার টাকার পোনা ছেড়েছিলেন। মাছের সঠিক পরিচর্যার জন্য উপজেলা মৎস্য অফিসের সহায়তাও নেওয়া হয়েছিল্
আবাইপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন জানান, দিন দশেক আগে বাঁওড়ে নৈশপ্রহরীকে নিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। এই নিয়ে শালিস বৈঠক বসে। তার ধারণা, ওই ঘটনার জের ধরে বাঁওড়ে বিষ প্রয়োগের ঘটনা ঘটতে পারে।
তিনি জানান, ৫-৭ দিন ধরে বাঁওড়ের মাছ মরে ভেসে উঠছে। একই সঙ্গে মরছে পানিতে থাকা অন্যান্য জলজ প্রাণীও। এখন পর্যন্ত বাঁওড়টির রুই, কাতলা, তেলাপিয়া, সিলভার কার্প, গ্রাস কার্প, কই, শৈল, টাকিসহ বিভিনন প্রজাতির প্রায় ৬০০-৭০০ মণ মাছ মরে গেছে। এতে তাদের প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন চেয়ারম্যান হেলাল।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানান, এ বাঁওড়টিতে প্রতি বছর শত শত মণ বিভিন্ন মাছ উৎপাদিত হয়। বাঁওড়টির মাছ মারা যাচ্ছে। পানি দূষণ নাকি বিষ প্রয়োগের ফলে এমনটি হচ্ছে তা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে যাচাই করা হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উসমান গনি বলেন, ‘বাঁওড়ে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধনের বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি। তবে এমনটি হলে তা খুব দুঃখজনক।’

আরও পড়ুন