শ্রাবণীকে চূড়ান্ত বরখাস্তের দাবিতে স্মারকলিপি

আপডেট: 07:26:25 17/05/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাময়িক বরখাস্ত হওয়া বিতর্কিত প্রধান শিক্ষক শ্রাবণী সুর ওরফে শ্রাবণী রাহাকে চূড়ান্ত বরখাস্তের দাবিতে শিক্ষামন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে।
আজ দুপুরে স্কুলটির ‘শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও এলাকাবাসী’র পক্ষে ২৪২ জনের স্বাক্ষরসম্বলিত স্মারকলিপিটি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রীকে দেওয়া হয়।
এতে বলা হয়, শ্রাবণী সুর স্কুলটিতে প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার পর নানা আর্থিক দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েন। শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের সঙ্গে কারণে-অকারণে  অশোভন  আচরণ করেন।
স্মারকলিপিতে বলা হয়, শ্রাবণী সুর শিক্ষার্থীদের জন্য এমন একটি স্কুলব্যাজ তৈরি করেন, যা ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্টের কারণ ঘটায়। অভিভাবকদের অনেকেই এই ব্যাজ নিয়ে আপত্তি উত্থাপন করলে শ্রাবণী তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। তিনি যশোর শহরের এমএসটিপি বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করাকালে ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে কটূক্তি করার কারণে শাস্তি পেয়েছিলেন। তখন উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল।
‘যশোরের মানুষ ঐতিহ্যগতভাবে ধর্মীয় সম্প্রীতির সঙ্গে বসবাস করেন। কিন্তু শ্রাবণী উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে এই কাজ করেন বলে আমাদের বিশ্বাস,’ বলা হয় স্মারকলিপিতে।
অভিভাবক ও এলাকাবাসী স্মারকলিপিতে বলেন, ‘অর্থ আত্মসাৎ ও ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্টের কারণে শ্রাবণীকে সাময়িক বরখাস্ত ও পরে চূড়ান্ত বরখাস্তের জন্য বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বোর্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে। আমরা আশ্বস্ত হচ্ছিলাম যে, এসকল অনাচারের বিচার হবে। ইতিমধ্যে তার দুর্নীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে মামলা চলমান ও দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তদন্ত করছে। কিন্তু আমরা অবাক বিস্ময়ের সাথে লক্ষ্য করছি, শাস্তি নিশ্চিত না করে তাকে বরং পুনর্বহালের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবের নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। এই সংবাদ আমাদেরকে প্রচণ্ডভাবে ক্ষুব্ধ ও হতাশ করেছে। অবিলম্বে সচিবের নির্দেশনা বাতিল করা জরুরি।’
স্মারকলিপির সঙ্গে বিতর্কিত স্কুলব্যাজটির একটি কপিও সংযুক্ত করা হয়। ওই ব্যাজটিকে অভিভাবকদের অনেকেই হিন্দু দেবী ‘সরস্বতীর প্রতিরূপ’ বলে অভিহিত করেন।
স্মারকলিপি প্রদানকালে সৈয়দ শাহাবুদ্দিন আলম, মাসুদুজ্জামান তুহিন, রফিক আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন