সংবর্ধনার ফুল পানজাবি পেতে নিলেন স্বপন

আপডেট: 04:48:42 27/04/2019



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : ফুল ভালোবাসার প্রতীক, শ্রদ্ধার প্রতীক। প্রিয়জনকে বরণ করে নিতে বা সংবর্ধনা জানাতে এমনকি মরণোত্তর শ্রদ্ধা জানাতে ফুলের কোন জুড়ি নেই। আর ভালবাসার মানুষকে খুশি করতে এই ফুলের ব্যবহার তো থাকাই চাই।
আবার প্রিয় এই ফুলের প্রতি অবজ্ঞাও দেখা যায় যত্রতত্র। সেই ফুলের প্রতি ভালোবাসার দৃষ্টান্ত স্থাপন করে সকলের মন কেড়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য। প্রতিমন্ত্রীকে বরণ করে নিতে শিক্ষার্থীদের ছোড়া ফুল পানজাবি পেতে গ্রহণ করলেন তিনি। ফুলের প্রতি প্রতিমন্ত্রীর এমন শ্রদ্ধাবোধ দেখে বিমোহিত উপস্থিত লোকেরা।
ঘড়ির কাঁটা তখন শনিবার বেলা সাড়ে ১১টা। মণিরামপুরের শৈলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের চার তলা অ্যাকাডেমিক ভবন উদ্বোধন করতে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে প্রধান ফটক পেরিয়ে ভিতরে প্রবেশ করছেন প্রতিমন্ত্রী। সকাল থেকে অপেক্ষায় থাকা স্কুলের শিক্ষার্থীরা আরাধ্য মানুষকে দেখে ফুলের পাঁপড়ি ছুড়ে অভিনন্দন জানাতে শুরু করে। ঠিক তখনই প্রধান অতিথি গায়ের পানজাবি পেতে দেন শিক্ষার্থীদের সামনে। আহ্বান জানান, ফুল ছুড়ে নষ্ট না করে পেতে দেওয়া পানজাবিতে দিতে। শিক্ষার্থীরাও সেই অনুযায়ীই কাজ করে।
নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ঝাঁপা ক্যাম্প পুলিশের এসআই সাখাওয়াত হোসেন জানান, প্রতিমন্ত্রী শৈলী হাইস্কুলের প্রধান গেট দিয়ে ঢোকার সময় অপেক্ষমাণ শিক্ষার্থীরা ফুল ছুড়তে শুরু করে। তখন প্রতিমন্ত্রী তাদের আহ্বান করেন, ফুল ছুড়ে নষ্ট না করে তার পানজাবিতে দিতে। প্রতিমন্ত্রীর কথা শুনে সবাই তার পানজাবিতে ফুল রাখতে শুরু করে। আর হাস্যোজ্জ্বল মুখে তা গ্রহণ করেন প্রতিমন্ত্রী।
ভবন উদ্বোধনের কাজ শেষে দুপুরে হরিহরনগর ইউনিয়ন যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দেন স্বপন ভট্টাচার্য্য।
মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র কাজী মাহমুদুল হাসান, উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নাজমা খানম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
বিকেলে তিনি উপজেলার বাসুদেবপুরে একটি রাস্তা এবং ইত্যা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণকাজ উদ্বোধন করবেন।

আরও পড়ুন