সাতক্ষীরার চারটি আসনে নৌকা চান ৩৬ নেতা

আপডেট: 02:08:22 20/08/2017



img

আব্দুস সামাদ, সাতক্ষীরা : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়ার আশায় সাতক্ষীরার চারটি আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের তিন ডজন নেতা গণসংযোগ শুরু করেছেন।
মনোনয়ন পেতে ইচ্ছুক ঢাকায় বসবাসকারী অনেক নেতাকেই দেখা যাচ্ছে সাতক্ষীরায় এসে সময় কাটাতে। নেতাদের সরব উপস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে, ঝড় উঠছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও।
দলীয় সূত্রগুলো জানায়, সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশায় প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন আওয়ামী লীগের দশ নেতা।
জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য প্রকৌশলী শেখ মুজিবুর রহমান, সাবেক প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স ম আলাউদ্দিনের মেয়ে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক লায়লা পারভিন সেঁজুতি, কলারোয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য বিএম নজরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ কামাল শুভ্র প্রচারণা চালাচ্ছেন।
এছাড়াও তালা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ নূরুল হক, সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎকুমার, কলারোয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ফিরোজ আহমেদ স্বপন, জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক সরদার মুজিব, যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা রফিকুল ইসলাম, জেলা কৃষকলীগ সভাপতি বিশ্বজিৎ সাধু ও কবি মন্ময় মনির এই তালিকায় রয়েছেন।
সাতক্ষীরা-২ (সদর) আসনে মনোনয়ন পেতে ইচ্ছুক জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি ও বর্তমান সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট এসএম হায়দার, যুগ্ম-সম্পাদক অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, যুগ্ম-সম্পাদক শেখ সাঈদ উদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম শওকত হোসেন।
জেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি ছাইফুল করিম সাবু, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু সাইদ, সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা ড. কাজী এরতেজা হাসান ও আ হ ম তারেক উদ্দিনও চষে বেড়াচ্ছেন নির্বাচনী মাঠ।
সাতক্ষীরা-৩ আসনে (দেবহাটা, আশাশুনি ও কালিগঞ্জের একাংশ) মনোনয়ন পেতে আগ্রহী সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ ফ ম রুহুল হক, লে. কর্নেল জামায়েত হোসেন, খুলনা নর্দার্ন ইউনিভার্সিটির ভিসি প্রফেসর ড. ইউসুফ আব্দুল্লাহ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মনছুর আহমেদ, আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম, আশাশুনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ডা. মোখলেছুর রহমান ও প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা সরদার হাফিজুর রহমান।
এছাড়া সাতক্ষীরা-৪ আসনে (শ্যামনগর ও কালিগঞ্জের একাংশ) মনোনয়ন নিশ্চিতে কাজ করছেন শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান সংসদ সদস্য এসএম জগলুল হায়দার, কালিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাঈদ মেহেদী, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ জাফরুল আলম বাবু, শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউল হক দোলন, সহ-সভাপতি শফিউল আযম লেলিন, সহ-সভাপতি গাজী আনিছুজ্জামান ও সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা আতাউর রহমান।
তবে মনোনয়ন লাভের আশায় যারা যেভাবেই গণসংযোগ করুন না কেন, দলীয় নেতা-কর্মীদের দাবি, ত্যাগী পরীক্ষিত নেতাদের দেওয়া হোক নৌকার টিকিট।
এ প্রসঙ্গে জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক হারুন-উর-রশীদ বলেন, ‘যারা এলাকায় থাকেন, তৃণমূলের মানুষকে সঙ্গে নিয়ে চলেন, তাদেরকে নৌকার মাঝি করা হোক। এলাকায় থাকেন না, অথচ ভোটের সময় এলে প্রার্থী হতে চান এমন মাঝি আমাদের দরকার নেই।’
এজন্য দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

আরও পড়ুন