সারারাত মশার কামড়ই জুটলো

আপডেট: 03:10:17 13/06/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : বেনাপোল বাজারে চোর সিন্ডিকেটের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে চুরি করতে যেয়ে ঘরের মধ্যে আটকা পড়ে সারারাত মশার কামড়ের সাজা পেল কাদের (১০) নামের এক শিশু। কাদের যশোর শহরের রেলগেটের কাশেমের ছেলে।
মঙ্গলবার গভির রাতে বেনাপোল বাজারের আবু বক্কারের মুদির দোকানের ঘুলঘুলি (ভেন্টিলেটর) ভেঙে চোর সিন্ডিকেটের সদস্যরা ভেতরে ঢুকিয়ে দেয় কাদেরকে। সে ঘরের মধ্যে ঢুকে তার জামা খুলে দোকানের ক্যাশ থেকে নগদ টাকা বেঁধে আর বের হতে পারেনি। সারারাত ওই মুদির দোকানের মধ্যে মশার কামড় খেয়ে রাত পার করতে হয়।
ঘরের মালিক আবু বক্কার বলেন, ‘প্রতিদিনের মতো বেচাকেনা করে রাতে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে যাই রাত নয়টার দিকে। বুধবার সকালে দোকান খুলে দেখি দোকানের মধ্যে সব কিছু এলোমেলো। পরে দোকানের পেছনের দিকে দেখি পালিয়ে আছে একটি শিশু। শিশুটি দোকানদারকে বলে কিছু লোক তাকে ভেন্টিলেটর ভেঙে দোকানের মধ্যে চুরি করতে ঢোকায়। এরপর সে টাকা পয়সা নিয়ে আর বের হতে পারেনি। শিশুটির স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বেনাপোল বাজারের ভাঙাড়ি দোকানদার আসলাম নামে এক ব্যবসায়ীকে আটক করে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ। আসলাম বেনাপোল পোর্ট থানার ভবেরবেড় গ্রামের কাদের মোল্যার ছেলে।’
বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই সুজিত বলেন, প্রাথমিকভাবে শিশুটির স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ঘরের মধ্যে তার গায়ের জামায় বাঁধা অবস্থায় মুদি দোকানদারের টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। হিসেব করে দেখা হচ্ছে কোনো টাকা বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কি না। চুরির সঙ্গে কে বা কারা জড়িত ছিল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আটক শিশুটিকে বেনাপোল পোর্ট থানায় রাখা হয়েছে।
এদিকে আটক আসলামের স্ত্রী ও তার মা দাবি করেন, আসলাম চোর না। তিনি বেনাপোল বাজারে দীর্ঘদিন ধরে ভাঙাড়ি ব্যবসা করেন। তাকে ঘুম থেকে উঠিয়ে পুলিশ নিয়ে গেছে।

আরও পড়ুন