সাড়ে চার ঘণ্টা পর মুক্ত ছাত্রলীগের চার নেতা

আপডেট: 07:47:12 10/01/2018



img
img

বাঘারপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি : বাঘারপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘাতের ঘটনায় ছাত্রলীগের সভাপতিসহ আটক চার নেতাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বুধবার বিকেলে উভয় পক্ষের কয়েকজন নেতার সমঝোতার ভিত্তিতে তাদের ছেড়ে দেয় থানা পুলিশ।
বিরোধ মীমাংসার ব্যাপারে বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় উভয় পক্ষের নেতাদের উপস্থিতিতে সমঝোতা বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ আজগর আলী।
মঙ্গলবার বাঘারপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও অফিস ভাংচুেরর ঘটনার পর বুধবার সকালে ফের সংঘাত বাধে। এদিন বেলা ১১টার দিকে ছাত্রলীগ সভাপতি পক্ষীয় ছাত্রলীগ নেতা সোহানকে একা পেয়ে মারধর করে প্রতিপক্ষ গ্রুপের লোকজন। সোহান দোহাকুলা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
এদিকে, এই ঘটনার পর আটকের প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি বায়েজিদ হোসেন, তার অনুসারী ছাত্রলীগ কর্মী বাবর আলী, প্রতিপক্ষ যুবনেতা আফজাল হোসেন গ্রুপের বাঘারপাড়া পৌর যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক এবং রাসেল স্মৃতি সংসদের পরিচালক এনায়েত হোসেন লিটন, একই গ্রুপের উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্মআহ্বায়ক সোয়াইব আহমেদকে।
বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুরুল আলম বলেন, ‘জনগণের ভেতর আতংক সৃষ্টি থেকে বিরত থাকার অঙ্গিকারে আটক ব্যক্তিদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।’
বর্তমানে পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।
এর আগে মঙ্গলবার বাঘারপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বায়েজিদ হোসেনের চৌরাস্তা এলাকার ব্যক্তিগত অফিসে তালা লাগিয়ে দেয় যুবনেতা আফজাল হোসেনের লোকজন। এ সময় ওই অফিসের কয়েকটি ছবি ভাংচুর করা হয় বলে অভিযোগ।
এ ঘটনার বদলা নিতে বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বায়েজিদ গ্রুপের লোকজন তাদের প্রতিপক্ষ গ্রুপের অফিস হাসপাতাল গেটের রাসেল স্মৃতি সংসদে ভাংচুর করে।

আরও পড়ুন