সুপারভাইজারকে গাড়ির নিচে ফেলে হত্যা!

আপডেট: 12:49:28 06/04/2019



img
img
img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে তেলবাহী ট্যাংকারের পেছনের চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন যাত্রীবাহী বাসের সুপারভাইজার আকাশ মাতুব্বর (৪০)। অপরদিকে, ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা গেছেন শ্রীকৃষ্ণ (৩২) নামে আরেকজন মোটর মিস্ত্রি।
শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে যশোরের অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া হাইওয়ে থানার পাশে যশোর-খুলনা মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে। আকাশ মাতুব্বর শরীয়তপুরের পালং উপজেলার দোমসার গ্রামের আদু মাতুব্বরের ছেলে।
অভয়নগর থানার এসআই জিয়াউর রহমান সাংবাদিকদের বলেছেন, শরীয়তপুর থেকে ছেড়ে আসা ফেম পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস (শরীয়তপুর ব ১১-০০০৩২) বেলা ১২টার দিকে নওয়াপাড়ায় হাইওয়ে থানার পাশে ফেরিঘাট এলাকায় পৌঁছায়। যশোর-খুলনা মহাসড়ক পুনর্নির্মাণের জন্য এ সময় সেখানে কিছুটা যানজট ছিল। মহাসড়কের পাশেই একটি ট্রাক পানি দিয়ে ধোয়ার কাজ চলছিল। আকাশ মাতুব্বর বাস থেকে নেমে ট্রাকচালককে সাইড দিতে অনুরোধ করেন। এই নিয়ে ট্রাকের চালক ও সাহায্যকারীর সঙ্গে তার কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আরো পাঁচ-ছয় জন ট্রাকচালক ও সাহায্যকারী এক হয়ে আকাশকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারতে থাকে। তারা আকাশ মাতুব্বরকে চলন্ত তেলবাহী ট্যাংকারের নিচে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। ট্যাংকারের পেছনের চাকায় পিষ্ট হয়ে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। দুপুর একটার দিকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
তিনি বলেন, 'আকাশ মাতুব্বরকে চলন্ত তেলবাহী ট্যাংকারের নিচে ফেলে হত্যা করা হয়েছে। আমরা চারজনের নাম-পরিচয় জানতে পেরেছি। তাদের গ্রেফতারে অভিযান ও মামলার প্রস্তুতি চলছে।'

ফেম পরিবহন যশোরের ম্যানেজার ফুল মিয়াও একই তথ্য দিয়েছেন।
অপরদিকে, বেলা দুইটার দিকে যশোর শহরের শংকরপুর সার গোডাউনের মোড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে শ্রীকৃষ্ণ নামে মোটরগাড়ির এক বডি মিস্ত্রি মারা যান। দুর্ঘটনার পরপরই পুলিশ সেখানে যায়। কিন্তু স্থানীয় লোকজন প্রায় দুই ঘণ্টা রাস্তা অবরোধ করে রাখে।
স্থানীয়রা জানান, শ্রীকৃষ্ণ ওই সময় রাস্তা পার হচ্ছিলেন। তখন একটি ট্রাক (ঝিনাইদহ-ট-১১-০৭১১) তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনি প্রাণ হারান।
যশোর চাঁচড়া ফাঁড়ির ইনচার্জ ইনসপেক্টর হুমায়ুন কবীর জানান, নিহতের মরদেহ যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। নিহত কৃষ্ণ যশোর শহরের শংকরপুর সার গোডাউন এলাকার আদিত্যের ছেলে।

আরও পড়ুন