হরিণাকুণ্ডুতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

আপডেট: 08:05:26 11/04/2018



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু উপজেলার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. রাকিবুল হাসান রাসেলের বিরুদ্ধে অতিদরিদ্রদের কর্মসূচির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে।
এই ইউনিয়নের চারজন ওয়ার্ড মেম্বর ও সংশ্লিষ্ট প্রকল্প সভাপতির স্বাক্ষরিত অভিযোগপত্রটি দুর্নীতি দমন কমিশন, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও সাংবাদিকদের কাছে পাঠানো হয়েছে।
অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির কাজ ২০১৭ সালের ২৩ ডিসেম্বর শুরু হয়। এ কাজে মোট ১৭৪ জন শ্রমিক বরাদ্দ ছিল। প্রকল্প-১ এ আড়য়াকান্দি মোতালেব মিয়ার বাড়ি থেকে রেজাউলের দোকান হয়ে বালির ট্যাগ পর্যন্ত মাটি দিয়ে রাস্তা সংস্কার। শ্রমিক সংখ্যা ৫৮। প্রকল্পের সভাপতি ওয়ার্ড মেম্বর মো. বশির উদ্দিন। প্রকল্প-২ এ শ্রীফলতলা বিশারত মণ্ডলের বাড়ি থেকে শহিদ লস্করের বাড়ি পর্যন্ত মাটি দিয়ে সংস্কার। এতে ৫৮ জন শ্রমিকের কাজ করার কথা। এই প্রকল্পের সভাপতি ছিলেন ওয়ার্ড মেম্বর মো. সাইদুল ইসলাম। প্রকল্প-৩ এ আন্দুলিয়া ছোট কেনাল ডিএফসি থেকে কালাপাড়িয়া বাগান পর্যন্ত রাস্তায় মাটি দিয়ে সংস্কার। এই প্রকল্পেও ৫৮ জন শ্রমিকের কাজ করার কথা। এই প্রকল্পের সভাপতি ছিলেন ওয়ার্ড মেম্বর হাসেম।
অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১৪ ফেব্রæয়ারি কাজ শেষ করার কথা থাকলেও ৭ ফেব্রæয়ারি পর্যন্ত মোট ৩৫ দিন কাজ করা হয়। বাকি এক সপ্তাহের কাজের এক লাখ ৭৪ হাজার ৭৫০ টাকা ফেরত গেছে। কিন্তু পরে চেয়ারম্যান নিজে প্রকল্প সভাপতিদের স্বাক্ষর জাল করে শ্রমিকদের চেক জমা না দিয়ে নিজে টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছেন।
এছাড়া অভিযোগে বলা হয়, ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে কাজের বিনিময়ে টাকা (কাবিটা) প্রকল্পে পোড়াহাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠের পাশে ছোট গর্ত বালি ভরাটের কাজ না করে দুই লাখ ৩৪ হাজার টাকা চেয়ারম্যান আত্মসাৎ করেন বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়।
এ ব্যাপারে এক নম্বর প্রকল্পের সভাপতি ও ওয়ার্ড মেম্বার বশির উদ্দিন বলেন, ‘আমরা চারজন ওয়ার্ড মেম্বার একটি অভিযোগ দিয়েছি। একটানা ৪০ দিন কাজ করার কথা ছিল। কিন্তু চেয়ারম্যান ৩৫ দিন কাজ করান। এইজন্য ঘাপলা হয়েছে। বিষয়টা তদন্তের পর আরো বিস্তারিত জানা যাবে।’
টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সম্পর্কে জানতে সাত নম্বর রঘুনাথপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাকিবুল হাসান রাসেলের মোবাইলে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।
হরিণাকুণ্ডু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আমি গতকাল মঙ্গলবার টাকা আত্মসাতের ব্যাপারে একটি অভিযোগপত্র পেয়েছি। তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।’

আরও পড়ুন