হাসপাতাল থেকে ফের ডিবি কার্যালয়ে শহিদুল

আপডেট: 03:06:06 08/08/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : প্রখ্যাত আলোকচিত্রী ও দৃক ফটো গ্যালারির ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহীদুল আলমকে আদালতের নির্দেশে বিএসএমএমইউতে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিৎসা শেষে বুধবার (৮ আগস্ট) দুপুর দুইটার দিকে আবার ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে।
ঢাকা মহানগর পুলিশের ডিসি মাসুদুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।
এর আগে বুধবার সকালে শহিদুল আলমকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ডিবি কার্যালয় থেকে বিএসএমএমইউ (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব চিকিৎসা বিশ্ববিদ্যালয়)-তে নেওয়া হয়।
বুধবার দৃকের জেনারেল ম্যানেজার এএসএম রেজাউর রহমান জানান, সকাল সাড়ে নয়টায় তারা জানতে পেরেছেন শহিদুল আলমকে বিএসএমএমইউতে আনা হয়েছে। বিএসএমএমইউর পঞ্চম তলার ১২ নম্বর কেবিনে তার স্বাস্থ্যের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।
রেজাউর রহমান বলেন, ‘আমরা তার সঙ্গে দেখা করতে চাইলে পলিশ দেখা করতে দেয়নি। পুলিশ এ বিষয়ে হাসপাতালের পরিচালকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেছেন। আমরা শহিদুল আলমের সঙ্গে দেখা করতে পারছি না। তার ব্যাপারে পরিষ্কার করে কেউ কিছু বলছেও না।’
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল বাতেন কোনো মন্তব্য না করে জানান, ডিএমপি মিডিয়া সেন্টার থেকে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।
এর আগে মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) রমনা থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে একটি বোর্ড গঠন করে আগামী বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) সকাল দশটায় প্রতিবেদন দেওয়ার জন্যও নির্দেশ দেন আদালত। পাশাপাশি মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) দিন ধার্য করা হয়েছে।
এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
শহিদুল আলমের বিরুদ্ধে রাজধানীর রমনা থানায় আইসিটি অ্যাক্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
ডিবি (উত্তর) পরিদর্শক মেহেদী হাসান বাদী হয়ে গত সোমবার (৬ আগস্ট) বিকেলে রমনা থানায় মামলাটি করেন।
এর আগে রোববার (৫ আগস্ট) রাত সাড়ে দশটার দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা ধানমন্ডির বাসা থেকে তাকে গাড়িতে করে তুলে নিয়ে যায়। পরে ডিবি স্বীকার করে শহিদুল আলম তাদের হেফাজতে আছেন।
পাঠশালার ভাইস প্রিন্সিপাল তানভির মুরাদ তপু বলেন, ‘রাত সাড়ে দশটার দিকে শহিদুল আলমকে ধানমন্ডি ৯/এ সড়কের বাসা থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে অজ্ঞাত লোকেরা তুলে নিয়ে যায়।’
সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

আরও পড়ুন