‘আমার উরু স্পর্শ করেছিলেন কৈলাশ’

আপডেট: 01:24:25 12/10/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : হলিউডের ‘মিটু হ্যাশট্যাগ’ আন্দোলন ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে বলিউডে। এবার ভারতীয় সংগীতশিল্পী কৈলাশ খেরের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন গায়িকা সোনা মহাপাত্র।
 টুইটারে ‘মিটু হ্যাশট্যাগ’ যুক্ত করে এই বোমা ফাটিয়েছেন তিনি। তার দাবি, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় একটি কনসার্টে সংগীত পরিবেশন করতে আসার পরও এমন অপ্রীতিকর ব্যবহার করেছেন ৪৫ বছর বয়সী এই গায়ক।
সোনা মহাপাত্রের দাবি, কৈলাশ তাকে কনসার্ট নিয়ে আলোচনার সময় আপত্তিকরভাবে স্পর্শ তো করেছেনই, এছাড়া খারাপ উদ্দেশে ঢাকায় হোটেল রুমে একা দেখা করতে বলেছিলেন।
টুইটারে ৪২ বছর বয়সী এই গায়িকা লিখেছেন, “কনসার্ট নিয়ে আলোচনার জন্য মুম্বাইয়ে জুহুর পৃথ্বি ক্যাফেতে কৈলাশ খেরের সঙ্গে দেখা করেছিলাম। কথাবার্তা শেষে আমার উরু স্পর্শ করে তিনি বলতে লাগলেন, ‘তুমি খুব সুন্দর। কোনো অভিনেতা তোমাকে না পেয়ে একজন সংগীতশিল্পী পেয়েছে, এজন্য খুব ভালো লাগছে।’ তার মুখে এসব শুনে আর একমুহূর্ত দেরি করিনি। রেগে চলে এসেছি।”
ভারতের এক নারী সাংবাদিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এসব অভিযোগ করেন সোনা মহাপাত্র। তার দাবি, অশালীন আচরণের কারণে তিনি ক্ষুব্ধ হলেও কৈলাশ খেরের এ নিয়ে তেমন মাথাব্যথা ছিল না। কারণ পরে এর পুনরাবৃত্তি ঘটান তিনি।
টুইটে সোনা মহাপাত্র আরো বলেন, ‘আমার রেগে যাওয়া কোনো কাজে আসেনি। ঢাকায় পৌঁছার পর আয়োজকদের সঙ্গে ভেন্যুতে যাওয়ার সময় কৈলাশ খের আমাকে অবিরাম ফোন করেই যাচ্ছিলেন। আমি তার ফোন ধরছিলাম না। এ কারণে আয়োজকের ফোনে আমাকে চেয়ে বসেন। তখন সাউন্ড চেক বাদ দিয়ে তার হোটেল রুমে যেতে বলেছিলেন তিনি।’
আরেকটি টুইটে জনপ্রিয় এই গায়িকা যোগ করেন, ‘আমি কতটা শক্ত মেয়ে তা জানেন তিনি। তাছাড়া আমার স্বামীর (সংগীত পরিচালক রাম সাম্পাত) মাধ্যমে তার উপকারও হয়েছে। তবুও তার আপত্তিকর ব্যবহার কমেনি। এই মানুষটার আসলে লজ্জা নেই।’
এদিকে কলকাতার একজন নারীর ব্যক্তিগত যোগাযোগের নম্বর নেওয়া ছাড়াও তাকে হোটেল রুমে নিমন্ত্রণের অভিযোগ উঠেছে কৈলাশ খেরের বিরুদ্ধে। এসব প্রসঙ্গে তার সাক্ষাৎকার নিয়েছে আইএএনএস। তিনি এ সময় ক্ষমা চান। তার কথায়, ‘সাদাসিধে জীবনযাপনে আমি পড়ে থাকি। কিন্তু কেউ কখনো কিছু ভিন্নভাবে দেখে কিংবা ভেবে থাকলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। গানের প্রতি সাধনা আমাকে আজকের অবস্থানে নিয়ে এসেছে। ভক্ত-শ্রোতাদের ভালোবাসা ও সমর্থনের জন্য কৃতজ্ঞতা রইলো।’
তবে টুইটারে সোনা মহাপাত্রের প্রশ্ন, ‘কত নারীর কাছে ক্ষমা চাইবেন কৈলাশ খের? এখন থেকে শুরু করুন। তবুও চিরকাল লেগে যাবে।’
ইনস্টাগ্রামে কৈলাশকে ‘সিরিয়াল শিকারী’ হিসেবে নিন্দা করেছেন সোনা মহাপাত্র। তার মন্তব্য, ‘বেহায়া মানুষটা নিজেকে সাধারণ পরিচয় দেয়। সুরের সাধনা নাকি করে। অ্যামনেসিয়ায় ভোগার অজুহাতও দেখায়।’
অভিনেতা নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে তনুশ্রী দত্ত অভিযোগ তোলার পর একে একে যৌন হয়রানি ও ধর্ষণ নিয়ে মুখ খুলেছেন বলিউডের অনেকে। পরিচালক বিকাশ বলের বিরুদ্ধে কঙ্গনা রনৌত ও নয়নী দীক্ষিত, অভিনেতা অলোক নাথের বিরুদ্ধে বিন্তা নন্দা, সন্ধ্যা মৃদুলসহ অনেকে, পরিচালক কুশান নন্দী ও অভিনেতা নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকির বিরুদ্ধে চিত্রাঙ্গদা সিং, রজত কাপুরের বিরুদ্ধে তিন নারী, প্রযোজক গৌরাঙ্গ দোশির বিরুদ্ধে ‘স্ত্রী’ খ্যাত অভিনেত্রী ফ্লোরা সাইনি, কবি-গীতিকার ভাইরামুথুর বিরুদ্ধে গায়িকা চিন্ময়ী অভিযোগ তুলেছেন। পরিচালক সুভাষ কাপুরকে নিয়েও এমন কিছু ছড়িয়ে পড়ায় তার ‘মোগল’ ছবি থেকে বেরিয়ে এসেছেন আমির খান।
সূত্র: এনডিটিভি, বাংলা ট্রিবিউন

আরও পড়ুন