‘চাচা’র ধর্ষণে অপমানিত কিশোরীর বিষপানে মৃত্যু

আপডেট: 05:33:38 09/09/2017



img

স্টাফ রিপোর্টার মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : চাচার ধর্ষণের শিকার হয়ে ক্ষোভে-দুঃখে বিষপান করেছিল এক কিশোরী। কয়েকদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার দিনগত রাতে সে মারা যায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে।
ঈদের দিন মণিরামপুরের মুড়াগাছা গ্রামে বাড়ির পাশের বাগানে রাশেদা আক্তার (১৪) নামে ওই কিশোরী ধর্ষিত হয়। ঘটনার ব্যাপারে মামলা হওয়ার পর অভিযুক্ত ধর্ষক সজীবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
রাশেদা আক্তার ওই গ্রামের রতন মণ্ডলের মেয়ে। তার মা বেবি খাতুনের সঙ্গে বাবার ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে। মা বেবি থাকেন ঢাকায়।
রতন মণ্ডল অভিযোগ করেন, গেল ঈদুল আজহার দিন রাত দশটার দিকে তার মেয়ে রাশেদাকে ফুঁসলিয়ে বাড়ির পাশের বাগানে নিয়ে যায় সজীব। যুবক সজীব সম্পর্কে মেয়েটির চাচা। সেখানে সে ধর্ষণ করে রাশেদাকে।
‘পরদিন সকালে ঘটনা জানাজানি হলে ক্ষোভ অপমানে বিষপান করে রাশেদা। সঙ্গে সঙ্গে তাকে ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ডাক্তাররা তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন,’ বলছিলেন রতন।
যশোর জেনারেল হাসপাতালের রেজিস্ট্রার খাতায় দেখা যায়, ৩ সেপ্টেম্বর রাত ১১টা ২৫ মিনিটে রাশেদাকে এই চিকিৎসাকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। আর ৯ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা ১২ মিনিটে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। ডাক্তার তৌহিদ ওই কিশোরীর মৃত্যু নিশ্চিত করেন।
বাবা রতন জানান, ধর্ষণের ঘটনায় তিনি মণিরামপুর থানায় মামলা করেছেন।
ওই গ্রামের মেম্বার মানোয়ার হোসেন জানান, মণিরামপুর থানার এসআই ফিরোজ অভিযুক্ত ধর্ষক সজীবকে গ্রেফতার করেন গত পরশু।
থানার এসআই ফিরোজ অভিযুক্ত সজীবকে গ্রেফতারের কথা নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন