‘পড়া হবে না’ শুনে এমএম কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

আপডেট: 03:40:09 12/07/2018



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরে বাবার ওপর অভিমান করে ক্ষমারানি কুণ্ডু (১৯) নামের এক কলেজছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন। বুধবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে স্বজনরা তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেন।
ক্ষমা শহরের হাকোবা কুণ্ডুপাড়ার বাবু কুণ্ডুর মেয়ে। তিনি যশোর সরকারি এমএম কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তার ববা বাবু কুণ্ডু কেশবপুর ইউএনও অফিসে চাকরি করেন।
এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, বুধবার রাতের খাবার খাওয়ার সময় বাবু কুণ্ডু মেয়ে ক্ষমাকে ‘আর লেখাপড়া করাতে পারবেন না; এবার বিয়ে দেবেন’ বলে জানিয়ে দেন। এসময় বাবার ওপর রাগ করে খাবার ফেলে কাঁদতে কাঁদতে ঘরে চলে যান ক্ষমা। মেয়ের মনের অবস্থা বুঝতে পেরে মা তৃপ্তিরানি কুণ্ডুও ওই ঘরে ঘুমাতে যান। একপর্যায়ে রাত দেড়টার দিকে ঘরের ছাদের রডের সঙ্গে ওড়না জড়িয়ে গলায় ফাঁস দেন ক্ষমা। রাত দুইটার দিকে হঠাৎ ঘুম থেকে উঠে মেয়েকে ঝুলতে দেখে চিৎকার দেন তৃপ্তি। পরে আশপাশের লোকজন এসে লাশ নিচে নামিয়ে আনেন।
মণিরামপুর থানার এসআই তপনকুমার জানান, খবর পেয়ে সকালে ঘটনাস্থলে গিয়েছি। স্বজনদের অনুরোধে লাশ দাহ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন