‘রিয়াল মাদ্রিদ স্বপ্নের ক্লাব’

আপডেট: 07:05:20 21/03/2019



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : ২০১৬ সালে কম নাটক হয়নি পগবাকে নিয়ে। জুভেন্টাসের হয়ে নাম কামিয়ে আর তর সইছিল না এই মিডফিল্ডারের। চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বাদ পেতে আরো ‘বড়’ ক্লাবের খোঁজে নেমেছিলেন পগবা ও তার এজেন্ট মিনো রায়োলা। দুটি দলের নামই এসেছে বারবার—রিয়াল মাদ্রিদ ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। অনেক জল্পনা কল্পনা শেষে জিনেদিন জিদানের হাতছানি উপেক্ষা করে ইউনাইটেডেই গিয়েছেন পগবা। তিন মৌসুম পর জিদান ও রিয়ালের দিকে আবার ভালোবাসামাখা দৃষ্টি ছুড়ে দিচ্ছেন পগবা!
২০১৬ সালের আগস্টে সে সময়কার দলবদলের বিশ্ব রেকর্ড ভেঙে ইউনাইটেডে গিয়েছিলেন পগবা। যে আশায় গিয়েছিলেন সেটটি এখনো পূরণ হয়নি। ইউনাইটেডের হয়ে এখনো প্রিমিয়ার লিগ জেতেননি। যদিও এবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার সম্ভাবনা আছে। বার্সেলোনাকে ডিঙিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করতে হবে ইউনাইটেডকে। ক্লাবের খুব একটা সাফল্য না পেলেও জাতীয় দলের হয়ে গত বছরই বিশ্বকাপ জেতা হয়ে গেছে। ২০২০ সালের ইউরোর বাছাইপর্ব খেলতে ফ্রান্স দলের সঙ্গেই আছেন পগবা। সেখানেই রিয়াল মাদ্রিদের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ পেল তার, ‘রিয়াল মাদ্রিদ সবার জন্যই স্বপ্নের ক্লাব।’
এমন মন্তব্যে সবারই ভ্রু কুঁচকাতে বাধ্য। একে তো পরের দলবদলে একাধিক তারকা কেনার পরিকল্পনা রিয়ালের। আর জিদানের তালিকায় নাকি এডেন হ্যাজার্ডের সঙ্গে পগবার নামটিও আছে। রিয়ালের প্রতি আগ্রহ বাড়ার পেছনে জিদানের ফেরাকেই কারণ হিসেবে দেখাচ্ছেন পগবা, ‘ওরা বিশ্বের সেরা ক্লাবগুলোর একটি। এখন তারা আবার জিদানকে পেয়েছে কোচ হিসেবে। সব কিশোর ও খেলোয়াড়ের জন্য স্বপ্নের এক মানুষ। তবে আমি এখন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে আছি।’
তিন মাস আগে হলেও পগবার এমন মন্তব্যের পর ইউনাইটেড সমর্থকেরা দুশ্চিন্তায় পড়ে যেতেন। কোচ হোসে মরিনহোর সঙ্গে সম্পর্ক এতটাই বাজে রূপ পেয়েছিল যে স্কোয়াড থেকেও বাদ পড়েছিলেন কয়েকবার। কিন্তু ইউনাইটেড-কিংবদন্তি ওলে গুনার সুলশার দলের দায়িত্ব নেওয়ার পর দুর্দান্ত ফর্মে পগবা। ইউনাইটেডের হয়ে আবার সেই পগবার দেখা মিলছে, যার জন্য ১০৫ মিলিয়ন ইউরো খরচ করতে বাধেনি ইউনাইটেডের। পগবাও বলছেন, নতুন পরিস্থিতিতে ভালোই আছেন। তবে ভবিষ্যতের নিশ্চয়তা দিতে পারছেন না ফ্রেঞ্চ মিডফিল্ডার, ‘নতুন এক কোচ (সুলশার) এসেছে এবং আমি এখন খেলছি। হয়তো পরে কখনো (রিয়ালে যেতে পারেন), আপনি কখনো জানেন না ভবিষ্যতে কী আসতে পারে। আপাতত আমি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে আছি।’
সূত্র : প্রথম আলো