‘সাচ্চু ওস্তাদের’ মৃত্যু

আপডেট: 12:53:36 11/07/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের ফুটবলারদের ‘সাচ্চু ওস্তাদ’ মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।
আজ বুধবার সকাল সোয়া সাতটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় খুলনার আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে মারা যান ফুটবল কোচ ইমদাদুল হক সাচ্চু। তিনি লিভার ক্যানসারে ভুগছিলেন।
ইমদাদুল হক সাচ্চুর বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। তিনি যশোর শহরের রেল রোডের মৃত মতলেব হোসেনের ছেলে। তার ভাই সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা মরহুম অ্যাডভোকেট মনোয়ার হোসেন।
সাচ্চু স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ, আত্মীয়-স্বজন এবং হাজারো শিষ্য রেখে গেছেন।
যশোর জেলা ফুটবল ফেডারেশনের সাবেক কোষাধ্যক্ষ জয়নাল আবেদিন সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘বেশ কিছু দিন ধরে সাচ্চু ওস্তাদ লিভার ক্যানসারে ভুগছিলেন। গত ২৮ জুন মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরিবারের লোকজন তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করেন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত সপ্তাহে তাকে খুলনা শেখ আবু নাসে নাসের ক্যানসার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। আজ সকাল সোয়া সাতটার দিকে তিনি মারা যান। মরদেহ যশোর আনা হচ্ছে।
বাদ আছর যশোর কেন্দ্রীয় ঈদগাহে মরহুম সাচ্চুর নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে কারবালা কবরস্থানে দাফন করা হবে তাকে।
যশোরের প্রবীণ ক্রীড়া সংগঠক ও খেলোয়াড়রা জানান, ইমদাদুল হক সাচ্চু ১৯৬৪ সালের দিকে ফুটবলজগতে আসেন। তিনি একজন ভালো ফুটবলার ছিলেন। পরে তিনি কোচ হন। গত অর্ধশতকে তার কাছে হাতেখড়ি নেননি, যশোরে এমন ফুটবলার খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। শিষ্যদের মধ্যে অনেকেই জাতীয় মানে উন্নীত হয়েছেন। নারী ফুটবলার তৈরিতেও তার গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে।

আরও পড়ুন