সিকান্দারমেলায় উদোম নৃত্য!

আপডেট: 02:16:19 18/03/2018



img
img

ইলিয়াস হোসেন, তালা (সাতক্ষীরা) : গেল সপ্তায় সিকান্দারমেলা উদ্বোধনকালে বিশিষ্ট ব্যক্তিরা একবাক্যে আশ্বাস দিয়েছিলেন, এখানে কোনো জুয়া বা অশ্লীল কারবার হবে না। কিন্তু হায়, তাদের আশ্বাস ফলেনি। বাংলাসাহিত্যের প্রখ্যাত এই কবি স্মরণে আয়োজিত মেলায় অশ্লীল নাচ চলছে অবলীলায়। উদ্যোগ-আয়োজন চলছে লটারির নামে জুয়ারও।
বাংলাদেশের প্রখ্যাত কবি সিকান্দার আবু জাফরের গ্রামের বাড়ি, সাতক্ষীরার তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামে। সেখানে এবার সরকারিভাবে কবির স্মৃতিতে আয়োজন করা হয়েছে সিকান্দারমেলা।
মেলায় কবির জীবনী ও সাহিত্য-সংস্কৃতি বিষয়ক আলোচনার পাশাপাশি তার লেখা বই, গান, নাটক ও কবিতা প্রদর্শনের শর্ত থাকলেও বাণিজ্যিকীকরণের দৌরাত্ম্যে তা ধামাচাপা পড়ছে। বদলে রমরমিয়ে উঠছে নারীদেহের প্রদর্শনী।
দেশের প্রখ্যাত কবি ও সাহিত্যিক সিকান্দার আবু জাফরের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনে জেলা শিল্পকলা একাডেমির তত্ত্বাবধানে তালা উপজেলার তেঁতুলিয়ায় কবির জন্মভিটায় আয়োজন করা হয়েছে সিকান্দারমেলা। গত ৯ মার্চ ১৫ দিনের এই মেলা শুরু হয়েছে। কিন্তু মেলায় অনুপস্থিত কবির জীবন ও সাহিত্য-সংস্কৃতি নিয়ে আলোচনা। এই দীনতায় ক্ষুব্ধ সাহিত্য ও সংস্কৃতিপ্রেমী তালার মানুষ।
দেশের একজন বরেণ্য কবির নামে শুরু হওয়া মেলাকে ঘিরে শুরু থেকেই রয়েছে নানা অভিযোগ। মেলায় আয়োজিত যাত্রা, পুতুলনাচের নামে চলছে অশ্লীল উদোম নৃত্যের মহোৎসব। এ ছাড়াও রয়েছে অসামাজিক নানা আয়োজন। এবারের মেলায় যাত্রা, পুতুলনাচ, সার্কাস, নাগরদোলাসহ বাহারি পসরা নিয়ে দোকানিদের আগমন ঘটলেও দর্শক সমাগম তেমন হচ্ছে না। যা কিছু দর্শক হচ্ছে, তা নারীর উদোম শরীরের তথাকথিত নৃত্য দেখতে।
এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্র জানায়, কবি পরিবারের পক্ষে ২০০১ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত মেলা আয়োজন করা হয়। পরে গণদাবির প্রেক্ষিতে এবছরই প্রথম বারের মতো সরকারিভাবে কবির জন্মবার্ষিকীকে সামনে রেখে আয়োজন করা হয়েছে সিকান্দারমেলার।
গত ৯ মার্চ জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে স্থানীয় এমপি মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এবারের সিকান্দারমেলা উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা এক বাক্যে বলেছিলেন, মেলায় কোনো অশ্লীলতা ও জুয়া চলবে না। পরে গত বৃহস্পতিবার রাতে জুয়া শুরু হয়। তবে স্থানীয় প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপে কিছুক্ষণের মধ্যেই বন্ধ হয়ে যায় তা।
এব্যাপারে মেলা আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব শেখ মোসফিকুর রহমান মিলটন বলেন, ‘মেলায় অনিয়মের কোনো সুযোগ নেই। লটারিও হবে না।’
মেলার মাঠ ইজারাদার সাইফুলের বক্তব্য অবশ্য ভিন্ন। তিনি বলেন, ‘মেলায় এ পর্যন্ত প্রায় ১৬ লাখ টাকা লগ্নি করেছি। লটারি চালু না করলে কোনোভাবেই লগ্নির টাকা উঠবে না।’
এ ব্যাপারে তালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান হাফিজুর রহমান জানান, যেভাবে মেলার অনুমোদন হয়েছে, তার বাইরে কোনো অবৈধ আয়োজন হতে দেওয়া হবে না।

আরও পড়ুন