চেয়ারম্যানের কথা না শোনায় হল সুপার লাঞ্ছিত

আপডেট: 02:35:59 22/11/2017



img

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : চেয়ারম্যানের কথামতো পরীক্ষা না নেওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলামের হাতে হল সুপার তাহের মাহমুদ সোহাগ লাঞ্ছিত হয়েছেন। এ ঘটনায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও কোনো প্রতিকার পাননি হল সুপার।
মঙ্গলবার সকালে কলারোয়া উপজেলার চন্দনপুর হাইস্কুল কেন্দ্রে এ ঘটনাটি ঘটে।
হল সুপার তাহের মাহমুদ সোহাগ জানান, মঙ্গলবার পিএসসি পরীক্ষার পরিবেশ পরিচিতির পরীক্ষা চলছিল। কলারোয়া উপজেলার চন্দনপুর ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলামের মেয়ে পিএসসি পরীক্ষা দিচ্ছিল। পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্রে চেয়ারম্যান জোরপূর্বক ঢুকে পড়েন। ডিউটিরত শিক্ষকদের তিনি তার কথামতো পরীক্ষা নেওয়ার জন্য বলেন। এ সময় শিক্ষকরা তাকে হল সুপারের সঙ্গে কথা বলতে বলেন। হল সুপার এসে চেয়ারম্যানের কথা রাখতে অপারগতা প্রকাশ করেন। মোবাইলে কথা বলতে নিষেধ করায়  চেয়ারম্যান তাকে লাঞ্ছিত ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।
ঘটনাটি সঙ্গে সঙ্গে কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করেন হল সুপার।
চন্দনপুর হাইস্কুলের শিক্ষক আনছার আলি জানান, চেয়ারম্যানের মেয়ে পরীক্ষা দিচ্ছিলো। চেয়ারম্যান হলের ভেতর ঢুকে মোবাইলে কথা বলছিলেন। এসময় হল সুপার তাকে মোবাইল ফোনটি নিয়ে শ্রেণিকক্ষের বাইরে যেয়ে কথা বলতে বলেন। এই কারণে তাকে লাঞ্ছিত করেন চেয়ারম্যান।
চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি এ ঘটনা সম্পর্কে কোনো কথা বলবো না। ইউএনও সাহেব ঘটনাটি জানেন। আপনি তার সাথে কথা বলেন।’
কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনিরা পারভীন বলেন, ‘দুইজনের মধ্যে কথাকাটি হয়েছিল। আমার মাধ্যমে সেটি মীমাংসা হয়ে গেছে।’

আরও পড়ুন