শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে জিম্বাবুয়ের চমক

আপডেট: 08:26:51 17/01/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : মিরপুর স্টেডিয়ামের শততম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ নেই, সেই আক্ষেপ-আফসোসই এখন গুঞ্জরিত হচ্ছে দেশের ক্রিকেট অঙ্গনে। খোদ বিসিবি সভাপতিও বলেছেন যে, শততম ম্যাচে বাংলাদেশ থাকলেই ব্যাপারটি ভালো হতো।
তবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের শততম ম্যাচটি খুব ভালোমতোই স্মরণীয় করে রাখলেন শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা। উপহার দিলেন জমজমাট এক ম্যাচ। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর শেষ পর্যন্ত জিম্বাবুয়ে পেয়েছে ১২ রানের জয়।
বাংলাদেশের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছিল জিম্বাবুয়ে। রীতিমতো অসহায় আত্মসমর্পণই করতে হয়েছিল মাসাকাদজা-সিকান্দার রাজাদের। তাই অনেকেই হয়তো আজকের ম্যাচে শ্রীলঙ্কার সহজ জয়ই অবধারিত বলে ধরে নিয়েছিলেন। কিন্তু তাদের অবাক করে দিয়েছেন জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা।
২৯১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ঝড়োগতিতে শুরু করলেও কয়েক ওভার যেতে না যেতেই চাপের মুখে পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। সাত ওভারের মধ্যেই হারায় দুটি উইকেট। স্কোরবোর্ডে রান তখন ৪৭। প্রাথমিক এই ধাক্কাটা অবশ্য ভালোভাবেই সামলেছিলেন অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ও কুশাল পেরেরা। তৃতীয় উইকেটে তারা গড়েছিলেন ৮৫ রানের জুটি।
২৫তম ওভারে এই জুটি ভাঙেন সিকান্দার রাজা। ৮০ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলে ফিরে যান কুশাল। ৩১তম ওভারে ম্যাথিউসও ৪২ রান করে ফিরে গেলে নতুন করে চাপে পড়ে যায় লঙ্কানরা। দুই ওভার পরে ৩৪ রান করা দিনেশ চান্দিমালকেও আউট করে দিয়ে হয়তো জয়ের স্বপ্নেই বিভোর হয়েছিল জিম্বাবুয়ে।
কিন্তু তখনো নাটকের অনেক কিছুই বাকি ছিল। শেষপর্যায়ে দুর্দান্ত ঝড়ো ব্যাটিং করে জয় প্রায় ছিনিয়েই নিতে বসেছিলেন থিসারা পেরেরা। খেলেছিলেন ৩৭ বলে ৬৪ রানের লড়াকু ইনিংস। একপর্যায়ে শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ছিল ২৩ বলে ১৮ রান। কিন্তু ৪৭তম ওভারে পেরেরা সাজঘরে ফেরার পর আবার ম্যাচ হেলে যায় জিম্বাবুয়ের দিকে। শেষ পর্যন্ত ১১ বল বাকি থাকতেই ২৭৮ রানে গুটিয়ে যায় শ্রীলঙ্কার ইনিংস।
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছেন জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানরা। সিকান্দার রাজার ৮১, হ্যামিল্টন মাসাকাদজার ৭৩ রানের লড়াকু ইনিংসগুলোর সুবাদে জিম্বাবুয়ের স্কোরবোর্ডে জমা হয়েছিল ২৯০ রান।
সূত্র : এনটিভি