মাথাভাঙ্গায় ১৫ কোটি টাকার সোনা

আপডেট: 01:09:13 26/04/2018



img
img
img

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাচারের সময় চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা সীমান্তবর্তী নাস্তিপুর গ্রাম থেকে ১৫ কোটি টাকার ৩২০টি সোনার বার উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন।
আজ বুধবার দুপুরে দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুর সীমান্তের মাথাভাঙ্গা নদী থেকে সোনার চালানটি জব্দ করা হয়। তবে কোনো পাচারকারীকে আটক করা যায়নি।
চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক ইমাম হাসান জানান, চুয়াডাঙ্গা থেকে ভারতে সোনার একটি চালান যাবে বলে গোপন সংবাদ পায় বিজিবি। বুধবার সকাল থেকে সীমান্তবর্তী সুলতানপুর ক্যাম্পের কমান্ডার হাবিলদার বীরোন্দ বিজিবির একদল সদস্য নিয়ে নাস্তিপুর ভারত সীমান্তের আশাপাশে অবস্থান করছিল। দুপুর ৩টার দিকে নাস্তিপুর সীমান্তের ৮০ নম্বর প্রধান খুঁটির কাছে বাংলাদেশের ৫০ গজ অভ্যন্তরে অজ্ঞাত তিনজনকে দেখতে পান। তাদের ধরতে এগিয়ে গেলে টের পান ওই তিনজন। তারা নিজেদের কাছে থাকা তিনটি ব্যাগ মাথাভাঙ্গা নদীতে ফেলে সাঁতরে ভারতে ঢুকে পড়ে। পরে বিজিবি সদস্যরা মাথাভাঙ্গা নদীতে তল্লাশি করে চোরাকারবারিদের ফেলে যাওয়া তিনটি ব্যাগ উদ্ধার করেন।
খবর শুনে বিকেলে বিজিবির কুষ্টিয়া সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আরশাদ হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। তাদের উপস্থিতিতে চোরাকারবারিদের ফেলে যাওয়া ব্যাগ খুলে ব্যাগে থাকা ৩২০টি সোনার বার পাওয়া যায়; যার ওজন ৩৭ কেজি। উদ্ধার করা সোনার বাজার মূল্য প্রায় ১৫ কোটি টাকা।
তবে চোরাকারবারীরা ভারতের অংশে ঢুকে পড়ায় তাদেরকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে জানান বিজিবি কর্মকর্তা ইমাম হাসান।

আরও পড়ুন