সাতক্ষীরায় স্কুলছাত্রের খুনির যাবজ্জীবন

আপডেট: 04:56:37 12/11/2018



img

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরায় দশ বছরের শিশু ও স্কুলছাত্র তাপস বিশ্বাসকে (১০) হত্যা করে দেহ মাটিতে পুঁতে রাখার অপরাধে সাতক্ষীরায় একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। একই সঙ্গে লাশ গুম করার অপরাধে তাকে তিন বছর কারাদণ্ড ও তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
সোমবার সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ (দ্বিতীয়)আদালতের বিচারক অরুণাভ চক্রবর্তী এই রায় দেন।
দণ্ডিত আসামি অশোককুমার বিশ্বাস ওরফে টুপাল এ সময় কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিল। সে তালা উপজেলার রাঢ়িপাড়া গ্রামের মহাদেব বিশ্বাসের ছেলে।
মামলার বিবরণ উদ্ধৃত করে পিপি অ্যাডভোকেট তপনকুমার দাস জানান, ২০০৭ সালের ১৭ মার্চ সাতক্ষীরার তালা উপজেলার রাঢ়িপাড়া গ্রামের মালোপাড়ার হরেন বিশ্বাসের ছেলে রাঢ়িপাড়া সরকারি প্রাথমিক  বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র তাপস বিশ্বাসকে (১০) দুর্বৃত্তরা অপহরণ করে। পরে তাকে ঘরের মধ্যে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর বাড়ির পাশে একটি পুকুরপাড়ে তার লাশ পুঁতে রাখে। পরদিন পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। এ সময় গ্রেফতার করা হয় ঘাতক অশোকসহ কয়েকজনকে।
এ ঘটনায় বাদী হয়ে পাটকেলঘাটা থানায় একটি মামলা করেন পুলিশের উপপরিদর্শক কাজী শহিদুজ্জামান। তদন্ত শেষে পুলিশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয়।
বিচারক এই মামলার প্রধান আসামি অশোককুমার বিশ্বাসের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন। একই সঙ্গে লাশ গুম করার অপরাধে তিন বছর কারাদণ্ড ও তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে
সরকার পক্ষে এ মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট জিয়াউর রহমান। আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ।

আরও পড়ুন