ব্যবসায়ীকে হয়রানিমূলক মামলা, প্রতিকার দাবি

আপডেট: 03:12:54 22/09/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর বড়বাজারের জব্বার সুপার সপের মালিক আজিম হোসেনকে হয়রানিমূলক মামলায় জড়ানোর অভিযোগ উঠেছে।
শনিবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম। তিনি দাবি করেন, তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পাশের জনৈক রাজু হোসেন জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে দুরভিসন্ধিমূলক এ মামলা করেছেন।
সংবাদ সম্মেলনে ফাতেমা বেগম বলেন, তাদের প্রতিষ্ঠানের জমিটি রাজু হোসেনের দাদার ছিল। তিনি তার নামীয় সম্পত্তি পাঁচজন ব্যক্তির কাছে কবলা দলিলমূলে বিক্রি করেন। ওই জমি গ্রহিতা পাঁচ ব্যক্তির কাছ থেকে পরবর্তী তার স্বামী আজিম হোসেন ক্রয় করে মার্কেট নির্মাণ করেন। রাজু বা তার বাবার কোনো সম্পত্তি না থাকায় তাদের জমির পাশে সরকারি জমিতে ঘর বেঁধে বসবাস করতেন। প্রায় ৯ মাস আগে মার্কেটের পেছনে থাকা ফাঁকা জমি দখল করে ঘর নির্মাণের চেষ্টা করে রাজু। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হলে আদালতের শরণাপন্ন হন তারা। পুলিশ প্রতিবেদন ও আদালতের রায় তাদের পক্ষে গেলেও রাজুকে নিবৃত করা যাচ্ছিল না। যে কারণে আবারো বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ীদের নিয়ে শালিস বৈঠক হলে তারা জমি মাপজোক করে দু’পক্ষকে মিলিয়ে দেন। এরপর থেকে সকলেই সহঅবস্থান করছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর রাজু তার প্রতিষ্ঠান দেশ ক্লিনিকের সামনে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতের শিকার হন। কে বা কারা কী উদ্দেশ্যে তার উপর হামলা করেছে তা আমাদের পরিবারের কেউ জানেন না। অথচ লোকমারফত আমরা জানতে পারি, ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আমার স্বামী আজিম হোসেনকে আসামি করা হয়েছে। কেবল হয়রানি ও সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতেই এ মামলা করা হয়েছে। পাশাপাশি বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় তার নামে সংবাদও প্রকাশ করানো হয়েছে।  এ মামলার কারণে এখন তারা পারিবারিকভাবে সবাই মানসিকভাবে বিপর্যস্ত।
এজন্য ফাতেমা বেগম এ ঘটনার সত্যতা উদঘাটনে সাংবাদিক ও পুলিশ কর্তৃপক্ষের কাছে সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেন। একইসাথে মিথ্যা অভিযোগে হয়রানি করার কারণে রাজুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আজিম হোসেনের ভাই নাদিম হোসেন, আল ফরিদ, বোন স্বাধীনা সুলতানা, বন্ধু ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ। 

আরও পড়ুন