পাকিস্তানে ব্র্যাকের কার্যক্রম গুটিয়ে নেওয়ার নির্দেশ

আপডেট: 06:17:05 10/12/2017



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : পাকিস্তানে ব্র্যাকসহ ২১টি আন্তর্জাতিক বেসরকারি সহায়তা সংস্থাকে (আইএনজিও)  দুই মাসের মধ্যে কার্যক্রম গুটিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই ২১টি সংস্থার নিবন্ধন আবেদন বাতিলের পাশাপাশি এ নির্দেশ দিয়েছে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রের বরাত দিয়ে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডেইলি পাকিস্তান খবরটি জানিয়েছে।
তবে ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনাল বলছে, পাকিস্তানে সংস্থাটির আন্তর্জাতিক কোনো শাখা নেই; স্থানীয়ভাবে সংস্থাটির অস্থায়ী কার্যক্রম চলে।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রে ডেইলি পাকিস্তান জানায়, সম্প্রতি দেশটিতে আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থাগুলোর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সরকার বেশ কিছু নতুন মানদণ্ড নির্ধারণ করে দেয়। কিন্তু এ ২১টি এনজিও সেই মানদণ্ড পূরণে ব্যর্থ হয়।
দেশটির একজন কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে ডেইলি পাকিস্তান জানায়, কার্যক্রম গুটিয়ে নেওয়ার জন্য এনজিওগুলোকে দুই মাসের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। তবে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এনজিওগুলোর রিভিউ আবেদন করার সুযোগ রয়েছে।
তবে পাকিস্তানে নিজেদের কোনো আন্তর্জাতিক শাখা নেই বলে জানিয়েছে ব্র্যাক।
ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের হেড অব কমিউনিকেশন শেহজিন চৌধুরী বলেন, ‘পাকিস্তানে ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের কোনো নিজস্ব কার্যক্রম নেই। পাকিস্তানে শুধুমাত্র স্থানীয়ভাবে রেজিস্টার্ড অস্থায়ী কার্যক্রম চলে ব্র্যাকের। যার দায় দায়িত্ব সবই স্থানীয় পর্যায় পর্যন্তই সীমাবদ্ধ। এতে করে পাকিস্তান থেকে ব্র্যাকের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণায় আমাদের কোনো দায় নেই।
অ্যাকশন এইড পাকিস্তানের কান্ট্রি ডিরেক্টর ইফতিখার এ নিজামি এ ব্যাপারে একটি বিবৃতি দিয়েছেন বলে জানিয়েছে ডেইলি পাকিস্তান।
বিবৃতিতে বলা হয়, ‘যুক্তি উপস্থাপনের সুযোগ না দিয়ে নতুন করে ঘোষিত আইএনজিও পলিসি ফ্রেমওয়ার্কের আওতায় আমাদের আবেদন প্রত্যাখ্যান করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। সকল কার্যক্রম বন্ধের জন্য আমাদেরকে ৬০ দিনের সময়সীমা দেওয়া হয়েছে। নিবন্ধনের দীর্ঘ প্রক্রিয়ার সময় আমরা প্রয়োজনীয় সব ধরনের তথ্য-উপাত্ত সরবরাহ করেছি। আমরা প্রয়োজনীয় সব শর্ত পূরণ করেছি।’
ব্র্যাক ইন পাকিস্তানের ওয়েবসাইটে বলা হয়, দেশটিতে ২০০৭ সালে সংস্থাটি কার্যক্রম শুরু করেছে। পাকিস্তানে অতি দরিদ্রদের জন্য ক্ষুদ্র ঋণ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং সমন্বিত সহায়তামূলক কর্মসূচি পরিচালনা করে থাকে ব্র্যাক। নিজস্ব ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্যে সংস্থাটি দাবি করেছে, এরই মধ্যে তারা সফলভাবে পাকিস্তানের লাখ লাখ মানুষের দুয়ারে পৌঁছে গেছে। স্বাস্থ্যকর্মীদের সহায়তায় গ্রামীণ জনগণের কাছে জরুরি স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিচ্ছে তারা। পাকিস্তানে নিয়োগ বাড়ানো, লৈঙ্গিক বৈষম্য কমানো এবং শিক্ষার মান উন্নয়নে দেশটির সরকারকে সহায়তার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করার কথা জানিয়েছে ব্র্যাক।
পাকিস্তানে দারিদ্র্য নিরসনের জন্য কর্মসূচি (পিপিআর) পরিচালনা করছে ব্র্যাক। এ কর্মসূচির আওতায় কমিউনিটি ইনস্টিটিউট গঠন, স্বাস্থ্য ও শিক্ষা সেবা, সম্পদের স্থানান্তর এবং বেলুচিস্তানে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে সামগ্রিক উন্নয়নে সহায়তা প্রদান করা হয়।
সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

আরও পড়ুন