পুনর্বাসিত ভিখারিণী সামেলা দোকান ফিরে পেলেন

আপডেট: 06:48:33 13/03/2018



img

আনোয়ার হোসেন, মণিরামপুর (যশোর) : অবশেষে দখলমুক্ত হলো মণিরামপুরের পুনর্বাসিত ভিখারিণী সামেলার দোকানঘর।
মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদের উপস্থিতিতে দোকানের তালা ভেঙে তা বেদখলমুক্ত করা হয়।
সামেলার দোকানঘর বেদখল হওয়া নিয়ে গত ৬ মার্চ পাঠকপ্রিয় নিউজপোর্টাল সুবর্ণভূমিতে মণিরামপুরে পুনর্বাসিত ভিখারিণীর দোকান বেদখল শিরোনামে একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। রিপোর্টটি নজরে আসে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদের। ওই রিপোর্টের ভিত্তিতে গত ১১ তারিখে তিনি দখলদার শাহিনুর রহমান টিটোটে দোকান দখলমুক্ত করতে নোটিস দেন। টিটো নোটিসের সাড়া না দেওয়ায় মঙ্গলবার সকালে উপজেলার সিলেমপুর বাজারে সরেজমিন গিয়ে এসি ল্যান্ড দোকানটি দখলমুক্ত করেন।
প্রায় দশ মাস আগে গত বছরের ২৭ এপ্রিল উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খানপুর ইউনিয়নের ফেদাইপুর গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা সামেলাকে দোকানটি বরাদ্দ দেওয়া হয়। বরাদ্দ পাওয়ার পরপরই তা দখলে নিয়ে তালাবদ্ধ করে রাখেন ইউনিয়নের শেখপাড়া খানপুর গ্রামের শাহিনুর রহমান টিটো নামে এক যুবক।
এদিকে, দশ মাস ধরে বেদখলে থাকা দোকান ফিরে পেয়ে খুশি সামেলা বেগম। এই দোকান ফিরে পেতে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরেছেন এই অসহায় নারী।
উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ বলেন, ‘ভিক্ষুকের দোকান বেদখলের খবর গণমাধ্যমে দেখে গত রোববার দখলদার টিটোকে নোটিস করা হয়। সাড়া না পেয়ে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় টিটো ও বাজারের লোকজনের উপস্থিতিতে তালা খুলে প্রকৃত মালিক সামেলাকে দোকানঘরটি বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।’
সামেলা যাতে ওই দোকান চালিয়ে নিজে চলতে পারেন সেই জন্য তাকে প্রাথমিকভাবে কিছু অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হবে বলে জানান এসি ল্যান্ড।

আরও পড়ুন