‘নিরাপত্তা বাহিনী কাউকে হত্যা করতে যায় না’

আপডেট: 10:43:35 24/06/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাউকে ইচ্ছা করে হত্যা করতে চায় না বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেন, ‘আমরা কাউকে হত্যা করতে চাই না। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী অবৈধ জায়গায় হানা দিলে যারা চ্যালেঞ্জ করে, ফায়ার ওপেন করে, তখন এই দৃশ্যগুলো ঘটে। নিরাপত্তা বাহিনী কাউকে ইচ্ছা করে হত্যা করতে যায় না। সবই বন্দুকযুদ্ধেই নিহত হয়েছে।’
রোববার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।
মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতির ডাক দিয়েছেন। যেকোনো মূল্যে আমরা দেশকে রক্ষা করবো। জনগণের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য যা যা করা দরকার, মাদক প্রতিরোধে যা দরকার আমরা অবশ্যই করবো।’
সারাদেশে মাদক ছড়িয়ে পড়ার কথা বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিটি পাড়ামহল্লায় মাদকের বিস্তার ঘটেছে।মাদকের কারণে সন্তান তার বাবা-মাকে হত্যা করছে। বাবা-মা অতিষ্ট হয়ে গ্রাম ছেড়েও চলে গেছেন। এই দৃশ্য আমরা দেখেছি। এ থেকে উত্তরণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় আমরা মাদকের বিরুদ্ধে টোটাল সংগ্রামে নেমেছি।’
অভিযান নিয়ে কেউ যেন ভুল না বোঝেন সেই আহ্বান জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘মাদকের বিরুদ্ধে সংগ্রাম নিয়ে কারো যেন ভুল বোঝার অবকাশ না থাকে, সেই জন্য বলছি আমরা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করছি। জনগণকে আমরা বোঝাতে সক্ষম হয়েছি, এটা ধ্বংসযজ্ঞ। যেকোনো মূল্যে এটা বন্ধ করতে হবে। মসজিদের ঈমামদের আমরা বলেছি, নামাজের আগে মাদকের ভয়াবহতার বিষয়ে কথা বলতে। স্কুল-কলেজের শিক্ষক ও রাজনীতিবিদ ও জনপ্রতিনিধিদেরও এই আহ্বান জানিয়েছি। মাদকের বিরুদ্ধে সবাই আজ কথা বলছে।’
অভিযোগের প্রক্রিয়া তুলে ধরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা গোয়েন্দাদের থেকে খবর নিচ্ছি, কারা মাদক ব্যবসা করে, কারা এর জন্য দায়ী। তাদের আমরা চিহ্নিত করে যাদের ধরতে গিয়েছি, তখন যারা সারেন্ডার করেছে, তাদের মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছি। রেগুলার কোর্টেও তাদের সোপর্দ করেছি।’
বর্তমানে দেশে ৮০ হাজার কারাবন্দির মধ্যে ৪০ শতাংশের বেশি মাদকের মামলায় অভিযুক্ত বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

আরও পড়ুন