মণিরামপুরে কিশোরী বধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আপডেট: 08:44:19 20/10/2018



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি : মণিরামপুরে বাল্যবিয়ের শিকার তানিয়া (১৪) নামে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে।
শনিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে পৌর এলাকার জুড়ানপুর কাজিপাড়ায় আমিন মাস্টারের ভাড়া বাড়িতে এঘটনা ঘটে।
তানিয়া উপজেলার জালালপুর গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী মুনসুর আলীর মেয়ে।
মা রহিমা বেগম জানান, তিনমাস আগে শার্শা উপজেলার সীমান্তবর্তী ওহিদচন্দ্রপুর গ্রামের আলম নামে এক যুবকের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয় তানিয়াকে। সেই থেকে তানিয়া কাজিপাড়ায় মায়ের সঙ্গে থাকতো। দুই দিন আগে তানিয়ার স্বামী আলম বেড়াতে আসে। আজ বিকেলে সে চলে যায়। স্বামীকে বিদায় দিয়ে বাসায় এসে নিজ শোয়ার ঘরের আড়ায় ওড়না জড়িয়ে গলায় ফাঁস দেয় তানিয়া।
তিনি বলেন, ‘ঘটনার সময় আমি মণিরামপুর বাজারে ছিলাম। বাড়ি ফিরে মেয়ের সাড়াশব্দ না পেয়ে ঘরে ঢুকে দেখি, তানিয়া ঝুলছে। দ্রæত তাকে নিচে নামিয়ে আনি। কিন্তু এর পরপরই মৃত্যু হয় তানিয়ার।’
তবে, মেয়ের মৃত্যুর কারণ জানাতে পারেননি রহিমা বেগম।
স্থানীয়রা বলছেন, ঘটনাটি রহস্যজনক।
তালিয়ার দুলাভাই ইসহাক আলী জানান, ৩-৪ বছর আগে মুনসুর আলী স্ত্রী রহিমা ও দুই মেয়েকে ফেলে রেখে অন্য নারীকে নিয়ে সংসার পেতেছেন। তখন থেকে রহিমা বেগম দুই মেয়েকে নিয়ে মণিরামপুর বাজার এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থেকে নওয়াপাড়ায় আকিজ জুটমিলে কাজ করে সংসার চালান।
মণিরামপুর থানার ডিউটি অফিসার এএসআই রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিষয়টি মোবাইলে একজন আমাকে জানিয়েছেন। তবে থানায় কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেননি।’

আরও পড়ুন