বাড়িভাঙ্গা খালের তিন বাঁধ দ্বিতীয় দফা উচ্ছেদ

আপডেট: 07:12:26 11/10/2017



img

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার নোয়াগ্রাম ইউনিয়নের বাড়িভাঙ্গা খালে অবৈধভাবে মাছ ধরার তিনটি বাঁধ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এম এম আরাফাত হোসেনের নেতৃত্বে উচ্ছেদ করা হয়েছে।
আজ বুধবার বেলা ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তিনটি আড়াআড়ি বাঁধ উচ্ছেদ করা হয় এবং এ সময় বাড়িভাঙ্গা খালের ওপর অবস্থিত স্লুইসগেট খুলে দেওয়া হয়। অভিযানকালে নলদী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. সায়েদুজ্জামানসহ পুলিশ ও গ্রাম পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
লোহাগড়া উপজেলার বৃহত্তম বিল ইছামতির সঙ্গে নবগঙ্গা নদীর সংযোগ স্থাপন করেছে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ বাড়িভাঙ্গা খাল। দেশি প্রজাতির মাছের উৎস হিসেবে খ্যাত খালটি স্থানীয় কতিপয় স্বার্থাণে¦ষী ব্যক্তি আড়াআড়ি বাঁধ দিয়ে এবং বিভিন্ন কৌশলে ডিমওয়ালা মাছ, ছোট আকৃতির মাছ নিধন করে আসছিলেন। যার কারণে পুঁটি, সরপুঁটি, শোল, টাকি, কই, শিং, পাবদা, ফলই, গুতে, বাইন, টেংরা, কাকলেসহ দেশি বিভিন্ন প্রজাতির মাছ হারিয়ে যেতে বসেছে।
এলাকার শতাধিক মৎস্যজীবী বাড়িভাঙ্গা খালটি সারা বছর উন্মুক্ত রাখার দাবিতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার বরাবর আবেদন করেন। ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা সহকারী কমিশনারের (ভূমি) নেতৃত্বে বাঁধগুলো অপসারণ করা হয়।
প্রসঙ্গত, গত ২৯ সেপ্টেম্বর লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীনের নেতৃত্বে ওই খালের বিভিন্ন পয়েন্টে স্থাপিত বাঁশের বাঁধ উচ্ছেদ করা হলেও স্থানীয় অসাধু ব্যক্তিরা ফের বাঁধ দিয়ে অবৈধভাবে মাছ শিকার করে আসছিল।
ওই এলাকার মৎস্যজীবীরা জানান, বাড়িভাঙ্গা খালটি বছরজুড়ে উন্মুক্ত থাকলে মা মাছ বিলে ডিম ছাড়তে পারবে। আশ্বিন-কার্তিক মাস জুড়ে খালটি উন্মুক্ত থাকলে মাছগুলো নদীতে ফিরে যেতে পারবে বলে মনে করছেন মৎস্যজীবীরা।

আরও পড়ুন