কালীগঞ্জের মাঠে ডাকাতদের ফেলে যাওয়া কাগজপত্র!

আপডেট: 07:50:16 25/09/2018



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : কালীগঞ্জ উপজেলার কোটচাঁদপুর সড়কে পাতবিলা মাঠের মধ্যে একটি আখক্ষেতে কয়েকটি ড্রাইভিং লাইসেন্স জাতীয় পরিচয়পত্রসহ বেশ কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পড়ে রয়েছে। গত কয়েক দিন ধরে মাঠের মধ্যে রোদ বৃষ্টিতে নষ্ট হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ এই কাগজগুলো। এগুলো উদ্ধারের জন্য কালীগঞ্জ থানা পুলিশকে জানালেও তারা গা করছে না।
গত ১৪ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত দুইটার দিকে কালীগঞ্জ-কোটচাঁদপুর সড়কের লাউতলা ও চারমাইল মাঠের মধ্যে ডাকাতি হয়। এসময় ডাকাতরা দুটি যাত্রীবাহী বাস, একটি প্রাইভেট কার ও একটি মুরগির বাচ্চাবাহী গাড়ি থেকে মোবাইল, স্বর্ণাংকার, নগদ টাকা ও কাগজপত্র লুট করে। স্থানীয়দের ধারণা, ওই রাতে ডাকাতরা মোবাইল, স্বর্ণাংকার ও নগদ টাকার সঙ্গে কেড়ে নেওয়া কাগজপত্র আখক্ষেতের মধ্যে ফেলে গেছে।
ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রীরা বলেন, ওই রাতে লাউতলা ও চারমাইল নামক স্থানের মাঝামাঝি মাঠের মধ্যে ডাকাতরা গাছ ফেলে পথ আটকে দেয়। এসময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী বাসের যাত্রীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাদের কাছে থাকা গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রসহ টাকা ও স্বর্ণালংঙ্কার কেড়ে নেয়।
যাত্রীদের অভিযোগ, ঘটনার সময় সড়কে থাকা টহল পুলিশকে খবর দিলেও তারা যাত্রীদের সহযোগিতা করেনি। তবে, ডাকাতরা সবকিছু লুটে নির্বিঘ্নে চলে যাওয়ার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে রাস্তায় পড়ে থাকা গাছ পরিষ্কার করার কাজে সহযোগিতা করে।
ডাকাতের কবলে পড়ে সবকিছু হানারোদের একজন ট্রাক চালক সোহাগ। যিনি কাজি ফার্মের মুরগির বাচ্চা বহন করা গাড়ির চালান। তার গাড়ির নম্বর ঢাকা মেট্রো ই ১১-৪২৯৬।
ট্রাকচালক সোহাগ বলেন, ‘আমি গোপালপুর থেকে মুরগির বাচ্চা নিয়ে কোটচাঁদপুরে যাচ্ছিলাম। পথে ডাকাতরা গাছ ফেলে আমার পথ রোধ করে। ডাকাতরা গলায় ধারালো দা দেখিয়ে আমার এবং আমার হেলপারকে জিম্মি করে। এসময় আমাদের কাছে থাকা মোবাইল ও নগদ আট হাজার টাকা ও গাড়ির কাগজসহ আমার লাইসেন্স ছিনিয়ে নেয়।’
কালীগঞ্জ থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) আতিকুর রহমান সে সময় জানিয়েছিলেন, ডাকাতির কোনো ঘটনা পুলিশের জানা নেই।
ঘটনার রাতে ওই সড়কে দায়িত্বে থাকা পুলিশের এসআই অমিত জানিয়েছিলেন, ডাকাতরা সড়কে গাছ ফেলে ডাকাতির চেষ্টা করছিল, কিন্তু পুলিশের তৎপরতায় তারা ব্যর্থ হয়।

আরও পড়ুন