‘জামায়াতের কেউ যেন ভোটে অংশ নিতে না পারে’

আপডেট: 09:46:10 16/09/2018



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেছেন, কালীগঞ্জের মতো ছোট্ট শহরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার জোয়ার দেখে আমি অভিভূত হয়েছি। আর মাত্র তিন মাস জাতীয় নির্বাচনের বাকি। আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করি। আমাদের সজাগ থাকতে হবে। দেশবিরোধী ঘাতক দালাল জামায়াতের কেউ যেন নির্বাচনে অংশ নিতে না পারে।
রোববার বিকেলে কালীগঞ্জ মেইন বাসস্ট্যান্ডে অনুষ্ঠিত আয়োজিত সমাবেশে তিনি বক্তৃতা করছিলেন।
নির্মূল কমিটি কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার আয়োজনে জনসভায় শাহরিয়ার কবির আরো বলেন, ‘ইতিমধ্যে সরকার জামায়াতকে বাতিল করেছে। আমরা আজ ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের প্রতিনিধি হিসাবে রাজাকার জামায়াতিদের নির্বাচনে দেখতে চাই না। রাজাকারদের পুনর্বাসনকারীদেরও প্রতিহত করতে হবে। আমরা বিএনপিকে বলেছি জামায়াতকে বাদ দিয়ে নির্বাচনে আসেন। আপনারা পাকিস্তানের দালালি করবেন না। পাকিস্তানিদের দালালি করবেন আবার এদেশে নির্বাচন করবেন সেটা করতে দেওয়া হবে না।’
‘আমরা নির্বাচন কমিশনকে বলেছি, জামায়াতের কোনো সদস্য স্থানীয় নির্বাচনেও যেন স্বতন্ত্রভাবে অংশ নিতে না পারে। জামায়াত রাজাকারদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই। জামায়াতে ইসলামীর এ দেশে কোনো ঠাঁই নেই। আমরা ইসলাম ধর্মে বিশ্বাস করি। এদেশে মওদুদি ইসলাম নয়, থাকবে মহানবীর আদর্শের ইসলাম। বাংলাদেশে ধর্ম ব্যবসায়ীদের কোনো ঠাঁই নাই।’
প্রায় আধা ঘণ্টার বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ এত দেউলিয়া হয়ে যায়নি যে জামায়াতকে নিয়ে দল ভারি করতে হবে। স্বাধীনতাবিরোধীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। তারা জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করেছিল। পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, জিয়াউর রহমান মারা গেলেও তার বিচার এই বাংলার মাটিতে করা হবে। বঙ্গবন্ধুকে যারা হত্যা করেছে শেখ হাসিনা তাদের বিচার করছেন। বঙ্গবন্ধুর কন্যা তার কথা রেখেছেন। আমরা বুকের রক্ত দিয়ে হলেও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করবো, বিচার হচ্ছে।’
ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি কালীগঞ্জ শাখার আহ্বায়ক ইসরাইল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কাজি মুকুল, ঝিনাইদহ-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল মান্নান, সংগঠনের ঝিনাইদহ জেলা কমিটির সভাপতি লিয়াকত আলী, যশোর জেলা সভাপতি হারুনর রশিদ, কেন্দ্রীয় সদস্য খন্দকার হাফিজ ফারুক, ফুরসন্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আব্দুল মালেক, আওয়ামী লীগ নেতা ওহিদুজ্জামান ওদু, যুবলীগ নেতা সাইদুল করিম লিমন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী রিপন প্রমুখ।
এর আগে শাহরিয়ার কবিরের আগমনের প্রতিবাদে কালীগঞ্জ উপজেলা ইমাম পরিষদ শনিবার বিকেলে কালীগঞ্জ মেইন বাসস্ট্যান্ডে মানববন্ধন কর্মসূচির ডাক দেয়। কিন্তু পুলিশি বাধায় তা পণ্ড হয়ে যায়।
আজকের সভায় তার আগমনের প্রতিবাদকারী ইমামদের গ্রেফতারের দাবি করেন শাহরিয়ার কবির।

আরও পড়ুন