নির্যাতনে ‘কঙ্কাল’ রোখসানা

আপডেট: 08:19:25 21/08/2018



img

নড়াইল প্রতিনিধি : সারা শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন নিয়ে অসহ্য যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে নড়াইলের এক শিশু। দশ বছর বয়সী ওই মেয়েটি বর্তমানে নড়াইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
নির্যাতিত শিশু রোখসানার পরিবারের অভিযোগ, বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজের কথা বলে ঢাকায় নিয়ে এক ব্যবসায়ী দম্পতি তাদের মেয়ের ওপর অমানবিক নির্যাতন করেছে।
রোখসানা জেলার লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের বাহিরপাড়া গ্রামের দিনমজুর রাসেল শেখের মেয়ে।
নির্যাতিত শিশুটির মা রত্না বেগম জানান, জানুয়ারি মাসে তাদের প্রতিবেশী সালেহা বেগম তার বড় মেয়ে রোখসানাকে ঢাকার ওয়ারীতে ব্যবসায়ী আসাদুল্লাহর বাসায় কাজের প্রস্তাব দেন। তাদের একটি শিশুকে দেখাশোনা করতে হবে।
তিনি বলেন, ‘সংসারের অভাব অনটনের কথা চিন্তা করে মেয়েকে ঢাকায় পাঠাতে রাজি হই। জানুয়ারি মাসে মেয়েকে নিয়ে যায় প্রতিবেশী সালেহা।’
রত্মা বেগম জানান, গত ১৭ আগস্ট আসাদুল্লাহর ভাই ফোন করে জানান, রোখসানা অসুস্থ হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে ঢাকায় গিয়ে অজ্ঞান অবস্থায় মেয়েকে হাসপাতালে দেখতে পান তারা। সেখান থেকে নিয়ে এসে ১৯ আগস্ট নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।
তিনি জানান, ব্যবসায়ীর স্ত্রী সোনিয়া বেগম তার মেয়েকে নির্যাতন করেন। মেয়ের পুরো শরীরজুড়ে শুধু আঘাতের চিহ্ন। যেন হাসপাতালে শোয়ানো কঙ্কাল।
তিনি মেয়ের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। পাশাপাশি ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।
নড়াইল সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মশিউর রহমান বাবু জানান, শিশুটি ঢাকার সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি ছিল। সেখান থেকে নড়াইল সদর হাসপাতালে আনা হয়েছে।
তিনি জানান, শিশুটিকে দীর্ঘদিন ধরে নির্যাতন করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।
তিনি বলেন, শিশুটির শরীরজুড়ে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন। পোড়ানোর চিহ্ন রয়েছে। হাড় ভাঙা। পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে সব তথ্য বেরিয়ে আসবে। যৌন নির্যাতন হয়েছে কিনা সে ব্যাপারেও পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।
নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন জানান, শিশু নির্যাতনের ঘটনা নিঃসন্দেহে দুঃখজনক। শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দিলে মামলা নেওয়া হবে। বিষয়টি বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হবে।

আরও পড়ুন