সুন্দরবনে ব্যাপক গোলাগুলি, অস্ত্র ও জিম্মি উদ্ধার

আপডেট: 06:43:36 13/07/2018



img

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা রেঞ্জ পশ্চিম সুন্দরবনে কোস্টগার্ড-বনদস্যু ব্যাপক গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে।
বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে সুন্দরবনের ছোট বৈকারী খাল-সংলগ্ন বৌ-ঠাকুরানির চর এলাকায় কৈখালী কোস্টগার্ড ও বনদস্যু জাকির বাহিনীর মধ্যে ৮০-৯০ রাউন্ড গোলাগুলি হয়। পরে কৈখালী কোস্টগার্ড, দোবেকী কোস্টগার্ড ও আংটিহারা কোস্টগার্ড সদস্যরা ঘটনাস্থলে দিনভর ব্যাপক তল্লাশি চালিয়ে বনদস্যুদের ব্যবহৃত দুটি ট্রলার, একটি নৌকা ও দুটি পাইপগানসহ মুক্তিপণের দাবিতে জিম্মি আট জেলেকে উদ্ধার করে। এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে শতাধিক মানুষ কোস্টগার্ডকে তল্লাশি অভিযানে সহায়তা করে।
উদ্ধারকৃত আট জেলেরা হলেন- কয়রা থানার কয়রা গ্রামের জবেদ আলীর ছেলে শরিফুল (৩৫) এবং শ্যামনগর উপজেলার মীরগাং গ্রামের বারী মোড়লের ছেলে মহাসিন (২৮), আব্দুল মজিদের ছেলে শাহীন (৩৫), সাকাত গাজীর ছেলে রেজাউল (৫৫), কদমতলা গ্রামে নাসিম গাজীর ছেলে আবুল গাজী (৬৫), আটুলিয়া গ্রামের কামাল গাজীর ছেলে নুর ইসলাম (৩৫) এবং চুনকুড়ি গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে বক্কার (৪০)।
কৈখালী কোস্টগার্ড পেটি অফিসার মো. আমির হোসেন জানান, সুন্দরবনে বনদস্যু জাকির বাহিনীর অবস্থান নিশ্চিত হয়ে সমন্বিত অভিযান চালানো হয়। এসময় কোস্টগার্ডের উপস্থিতি আঁচ পেয়ে বনদস্যু জাকির বাহিনী সুন্দরবনের গহিনে পালিয়ে যায়। উদ্ধার করা অস্ত্র শ্যামনগর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে এবং মুক্ত হওয়া জিম্মিদের স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে নিজ নিজ বাড়িতে পাঠানো হয়েছে।
শ্যামনগর থানার ওসি এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

আরও পড়ুন