সন্তানদের জন্য দুধ কিনে বাড়ি ফেরা হলো না

আপডেট: 02:17:56 24/09/2018



img
img

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরায় কাভার্ড ভ্যানের চাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন।
আজ সোমবার সকাল সাতটার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মাগুরা শহরতলীর পারনান্দুয়ালী যুব উন্নয়ন অফিসের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
সদর থানার এসআই আব্দুল মমিন জানান, নিহত লাভলু তালুকদার (৩৮) ফরিদপুরের ভাঙ্গা এলাকার শাহজাহান তালুকদারের ছেলে ও তার শ্যালক নিয়ামুল ইসলাম (২৫) একই এলাকার আব্দুল ওয়াদুদের ছেলে।
লাভলু দীর্ঘদিন ধরে মাগুরা শহরের সৈয়দ আতর আলী সড়কে সাকুরা কালার ল্যাবে চাকরি করছেন। তিনি স্ত্রী সুলতানা পারভীন ও দুই শিশুপুত্র ফাহিম ও সিয়ামকে নিয়ে শহরের ম্যাটারনিটিপাড়ায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। তার শ্যালক নিয়ামুল (২৫) দুইদিন আগে বোনের বাসায় বেড়াতে এসেছিলেন।
এসআই মবিন আরো জানান, লাভলু সকাল সাতটার কিছু আগে শ্যালক নিয়ামুলকে নিয়ে শহরের ম্যাটারনিটিপাড়ার বাসা থেকে মোটরসাইকেলযোগে তার দুটি শিশু পুত্রের জন্য শ্রীপুর উপজেলার রাধানগর বাজারে দুধ কিনতে যাচ্ছিলেন। মাগুরা শহরতলীর পারনান্দুয়ালী যুব উন্নয়ন অফিসের সামনে পৌঁছালে বিপরীতমুখী একটি কাভার্ড ভ্যান তাদের বহনকারী মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। দুর্ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয়।
পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাগুরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এই ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতির পাশাপাশি সড়কে লাগানো সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে কাভার্ড ভ্যান ও তার চালকে শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলে জানান এসআই আব্দুল মমিন।
এদিকে সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী ও ভাইয়ের মর্মান্তিক মৃত্যুতে দুই শিশুপুত্রকে কোলে নিয়ে শোকে পাথর হয়ে পড়েছেন সুলতানা পারভীন। তিনি যেন এ মৃত্যুর ঘটনা বিশ্বাস করতে পারছেন না। সুলতানা পরভীন শুধু বলছেন, যে মানুষটি এই মাত্র ঘুম থেকে উঠে বাসা থেকে বের হলেন দুধ কিনতে। তিনি মারা গেলে অবুঝ দুই সন্তানের জন্য দুধ আনবে কে? শহর থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে হলেও ভালো দুধ পাওয়া যাওয়ায় রাধানগর বাজার থেকে প্রতি সপ্তাহে দুই-তিন দিন স্বামী লাভলু সন্তানদের জন্য দুধ কিনে আনতেন বলে জানান সুলতানা।

আরও পড়ুন