মহেশপুরে ইভটিজার আট স্কুলছাত্র বহিষ্কার

আপডেট: 07:45:47 24/04/2018



img

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের মহেশপুরে ইভটিজিংয়ের অভিযোগে আট শিক্ষার্থীকে একযোগে বহিষ্কার করা হয়েছে।
উপজেলার জিএইচজিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির আট শিক্ষার্থী নিশান, খাব্বার, অপু দাস, সুজন, পিয়াল, সাব্বির, আহসান, জাবারুলকে ওই স্কুল থেকে বহিষ্কার করেন মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল ইসলাম। একই স্কুলের ১৭ মেয়ে শিক্ষার্থীর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার ওই বিদ্যালয়ে গিয়ে বিষয়টির সত্যতা পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়।
জিএইচজিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মতিয়ার রহমান জানান, দশম শ্রেণির আট শিক্ষার্থী মেয়েদের নানাভাবে হয়রানি করে আসছিল। বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েকবার অভিভাবকদের ডেকে মিটিং করে জানানো হয়েছে। তারপরেও ছেলেগুলো কথা শুনতো না।
তিনি আরো বলেন, ‘সোমবার তার বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ১৭ মেয়ে শিক্ষার্থী মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল ইসলাম, মহেশপুর থানার ওসি, উপজেলা শিক্ষা অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দেয়। এর প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার ইউএনও নিজে এসে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে আট শিক্ষার্থীকে স্কুল থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের নির্দেশ দেন।’
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মহিদুল ইসলাম বলেন, ‘যাদের স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে তারা খুব দুষ্টু। আমরা অনেকবার তাদের নিষেধ করেছি, কিন্তু কারো কথা শোনেনি।’
ইউএনও কামরুল ইসলাম বলেন, ‘ছাত্রীরা টিজিংয়ের শিকার হয়ে বাধ্য হয়েই আমার কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। আমি ঘটনাস্থলে যাই এবং বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে প্রমাণিত হয় আট ছেলে মেয়েদের নিয়মিত টিজ করে। আমি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও প্রধান শিক্ষককে নির্দেশ দিয়েছি ইভটিজারদের স্কুল থেকে বহিষ্কারের জন্য। এতে করে অন্য বিদ্যালয়গুলোর ছেলেরা ইভটিজিং করার সাহস পাবে না।’

আরও পড়ুন