‘যৌতুকের শিকার’ গৃহবধূর আত্মহত্যা

আপডেট: 07:16:36 25/10/2017



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে সেলিনা খাতুন (২৬) নামে এক গৃহবধূ কীটনাশক পানে আত্মহত্যা করেছেন। যৌতুকের দাবি মেটাতে ব্যর্থ হয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন বলে অভিযোগ।
সেলিনা খাতুন বাদিয়াটোলা গ্রামের রফিকুল ইসলামের স্ত্রী এবং সদর উপজেলার ছোট হৈবতপুর গ্রামের মো. ইসাহাক শেখের মেয়ে।
ভাই এখলাস শেখ সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘১০-১২ বছর আগে রফিকুল ইসলামের সাথে আমার বোন সেলিনার বিয়ে হয়। তাদের সংসারের একটি ছেলে ও একটি মেয়ে সন্তান আছে। বোনের বিয়ের সময় নগদ টাকা, সোনার গয়নাসহ বিভিন্ন আসবারপত্র মিলিয়ে ৫-৬ লাখ টাকার মালমাল দিয়েছি। বছরখানেক আগে রফিকুল তার স্ত্রী সেলিনার কাছে আরো দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। এই টাকা দিতে না পারায় রফিকুল আমার বোন সেলিনাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। বোনের মুখের দিকে তাকিয়ে তাকে দুই লাখ টাকা দিয়েছি। কিন্তু রফিকুল আবার মাসখানেক ধরে দুই লাখ টাকা দাবি করতে থাকে। যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে আমার বোনকে সে মারপিট করতে থাকে। ’
তিনি বলেন, ‘আজ বুধবার আবার সে সেলিনাকে মারপিট করে। সহ্য করতে না পেরে কীটনাশক পান করে সেলিনা। বাড়ির লোকজন টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা পৌনে ৩টার দিকে তার মৃত্যু হয়।’
যশোর জেনারেল হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডের ডাক্তার তহিদুল ইসলাম তার মৃত্যু নিশ্চিত করেন।
কোতয়ালী থানার এসআই মঞ্জুরুল ইসলাম সুবর্ণভূমিকে বলেন, ‘কী কারণে সেলিনা কীটনাশক পান করেছে বলতে পারবো না। নিহতের পরিবারের দাবি, যৌতুকের দাবি মেটাতে ব্যর্থ হয়ে সেলিনা কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে। তবে লাশের শরীরে আঘাতের চিহ্ন নেই।’

আরও পড়ুন