ট্রাম্প প্রশাসনের দৃষ্টিতে বাংলাদেশ

আপডেট: 03:10:17 23/05/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের জন্য বাংলাদেশকে সাহায্য দিতে গিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের মনে পড়ছে, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের বিরুদ্ধে গোটা মুসলিম জাহানকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের আরো মনে পড়েছে, গত বছর ট্রাম্প প্রশাসন শুধু স্বাস্থ্যখাতেই বাংলাদেশকে প্রদেয় সাহায্য থেকে ৩৩ মিলিয়ন ডলার কমিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব করেছিল। আর ২০০১ সাল থেকে বাংলাদেশ জাতিসংঘের ভোটাভুটিতে মাত্র ১২ শতাংশ ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের অনুকূলে  ভোট দিয়েছে। এই একটি তথ্যই বাংলাদেশে ট্রাম্প প্রশাসনের সাহায্য কাটছাঁট করার জন্য যথেষ্ট।
গতকাল ওয়াশিংটনভিত্তিক শীর্ষস্থানীয় থিঙ্কট্যাঙ্ক আমেরিকান এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউট প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ওই তথ্য ও পর্যবেক্ষণ প্রকাশ করা হয়েছে।  জেসিকা ত্রিস্কো দারদেন এবং  কেভিন রেগ্যানের যৌথ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহে ইউএসএইডের প্রশাসক মার্ক গ্রিন বাংলাদেশ সফরে গিয়ে রোহিঙ্গা এবং এই সংঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত অন্যদের জন্য অতিরিক্ত ৪৪ মিলিয়ন ডলারের সাহায্য ঘোষণা করেছেন। এর ফলে এই খাতে মোট মার্কিন সাহায্যের পরিমাণ দাঁড়ালো ৩০০ মিলিয়ন ডলার। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে বাংলাদেশকে দেওয়া এই অতিরিক্ত সাহায্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমেরিকা ফার্স্ট নীতিকে খাটো করছে কিনা। ট্রাম্পের বিদেশনীতির সারকথা হলো- যারা আমেরিকার পাশে দাঁড়াবে, আমেরিকাও তার পাশে দাঁড়াবে।
সূত্র : মানবজমিন

আরও পড়ুন