বেনাপোল সীমান্তে বিজিবির গুলিতে যুবক নিহত

আপডেট: 03:45:27 20/02/2018



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : বেনাপোল পোর্ট থানার দৌলতপুর সীমান্তে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের গুলিতে ইব্রাহীম (৩২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন; যাকে চোরাকারবারি বলছে বিজিবি। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ গাইট ভারতীয় মালামাল, একটি ওয়ান শুটারগান এবং দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয় বলে দাবি করেছে বিজিবি।
পরিবারের দাবি, তিনি একজন ভাড়াটে মোটরসাইকেল চালক। নিহতের লাশ বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।
নিহত ইব্রাহীম বেনাপোল পোর্ট থানার ইয়াকুব মোড়লের ছেলে। মঙ্গলবার (২০ ফেব্রæয়ারি) ভোরে দৌলতপুর সীমান্তের তেরঘর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল তারিকুল হাকিম জানান, গোপন সূত্রে জানা যায়, ১৫-২০ জনের একদল চোরাকারবারি ভারত থেকে বিপুল চোরাই পণ্য নিয়ে দৌলতপুর সীমান্তের তেরঘর এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকবে। এই সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির একটি টহল দল আগে থেকে সেখানে অবস্থান নেয়। চোরাকারবারিরা বাংলাদেশে ঢুকতে গেলে বিজিবি তাদের চ্যালেঞ্জ করলে চোরাকারবারিরা সংঘবদ্ধ হয়ে টহল দলের ওপর অতর্কিতে হামলা করে। এসময় চোরাকারবারিদের সঙ্গে বিজিবির গুলিবিনিময় হয়। এতে ইব্রাহিম (৩২) নামে এক চোরাকারবারি গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন। ঘটনাস্থল তল্লাশি করে চোরাকারবারিদের ফেলে যাওয়া পাঁচ গাইট ভারতীয় মালামাল, একটি ওয়ান শুটারগান এবং দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।
‘চোরাকারবারি’র লাশ, উদ্ধার করা আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও জব্দ করা মালামাল বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
নিহত ইব্রাহীমের ভাতিজা রুস্তম আলী দাবি করেন, তার চাচা ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালাতেন। তিনি রাতে বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন। সকালে থানা থেকে তার নিহতের খবর দেওয়া হয়।
‘কীভাবে ওখানে গিয়ে চাচা মারা গেল, তা এখনো আমরা বুঝে উঠতে পারছি না। তার বুকে গুলি লেগেছে,’ বলছিলেন রুস্তম।
বেনপোল পোর্ট থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) ফিরোজ উদ্দিন জানান, বিজিবির সঙ্গে চোরাকারবারিদের মধ্যে গুলিবিনিময় হয়। এসময় ইব্রাহিম নামে এক চোরাকারবারি গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন। তার বুকে গুলি লেগেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন