একদিনের ব্যবধানে তাহের সিদ্দিকী ইন-আউট

আপডেট: 08:10:17 22/11/2017



img
img
img

চন্দন দাস, বাঘারপাড়া (যশোর) : আর কতবার বহিষ্কার হবেন তিনি!- এ প্রশ্ন এখন যশোরের বাঘারপাড়ার সবখানে। এ পর্যন্ত চারবার বহিষ্কার হয়েছেন বাঘারপাড়া উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের সিদ্দিকী। বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও পরে ফের বহালের খবর নিয়ে এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ বাঘারপাড়াজুড়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। প্রায় দুই বছর এ নেতার বহিষ্কারাদেশ বহাল থাকার পর মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) তা প্রত্যাহারের খবরে তার অনুসারীরা উজ্জীবিত হয়েছিলেন। কিন্তু একদিন পর বুধবার ওই নেতার বহিষ্কারাদেশ ফের বহাল থাকার খবরে হাসি ম্লান হয়ে যায় তাদের। তবে, তাহেরবিরোধী শিবিরে বিরাজ করছে আনন্দমুখর পরিবেশ।
দলীয় শৃংখলা ভঙ্গ করে পৌর নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হওয়ায় ২০১৫ সালের ১৩ ডিসেম্বর দল থেকে বহিষ্কার হন বাঘারপাড়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দিকী। দীর্ঘ প্রায় দুই বছর পর গত ২১ নভেম্বর তাহের সিদ্দিকীর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে নেয় কেন্দ্রীয় কমিটি। এ সংক্রান্ত চিঠিতে স্বাক্ষর করেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। কিন্তু এর একদিন পর ২২ নভেম্বর একই নেতার স্বাক্ষরিত চিঠিতে জানানো হয়, তাহের সিদ্দিকীর বহিষ্কারাদেশ বহালের খবর।
আবু তাহের সিদ্দিকী সমর্থিত নেতা জাহাঙ্গীর হোসেন বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার ও পরে তা বহালের খবর সত্য উল্লেখ করে বলেন, ‘আমরা ফের চেষ্টা চালাচ্ছি তাহের ভাইয়ের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের। বিস্তারিত পরে বলবো।’
অন্যদিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বাঘারপাড়া উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ইঞ্জিনিয়ার টিএস আইয়ুব বলেন, ‘তাহের সিদ্দিকী কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বুঝিয়ে ও মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে ২১ নভেম্বর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করান। তিনি (তাহের) দলীয় নেতাকর্মীদের মারপিট করার অভিযোগে পুলিশের একটি মামলায় বর্তমানে জেলে রয়েছেন। অথচ কেন্দ্রীয় নেতাদের বোঝানো হয়েছে, রাজনৈতিক মামলায় জেলে রয়েছেন। কেন্দ্রীয় নেতারা এসব জানতে পেরে ২২ নভেম্বর ফের তাহের সিদ্দিকীকে বহিষ্কার করেন।’
এ নিয়ে তাহের চারবার বহিষ্কার হলেন উল্লেখ করে টিএস আইয়ুব বলেন, ‘তিনি দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে সরকারি দলের সাথে হাত মিলিয়ে চলেন। সে কারণে বাঘারপাড়ার বিএনপি নেতাকর্মীরা চান তাহের সিদ্দিকীর বহিষ্কারাদেশ বহাল থাক।’

আরও পড়ুন