‘সমুদ্র বিশেষজ্ঞ তৈরি করতে হবে’

আপডেট: 03:17:07 06/06/2016



img

খুলনা অফিস : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণচন্দ্র চন্দ বলেছেন, ‘মুদ্র বিজয়কে অর্থবহ করতে সমুদ্র বিশেষজ্ঞ তৈরি করতে হবে। তিনি এ ব্যাপারে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।
প্রতিমন্ত্রী সোমবার দুপুরে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশ্ব সমুদ্র দিবস-২০১৬ উপলক্ষে ‘ব্লু ইকোনমি : টুওয়ার্ডস এ সাসটেইনেবল ফিশারিজ অ্যান্ড মেরিন রিসোর্সেস ডেভলপমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ অ্যান্ড মেরিন রিসোর্স টেকনোলজি (এফএমআরটি) ডিসিপ্লি¬ন এ সেমিনারের আয়োজন করে।
প্রধান অতিথি ‘সমুদ্র বিজয়কে’ সরকারের ‘বিরাট অর্জন’ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, ‘সমুদ্রসম্পদ আহরণ ও রক্ষণে বিশ্বের অনেক দেশ এগিয়ে থাকলেও আমরা এখনও পিছিয়ে। সমুদ্রে কী পরিমাণ সম্পদ রয়েছে আমরা তা নির্ধারণ করতে পারিনি। এ জন্য প্রয়োজন টেকনোলজি এবং দক্ষ জনশক্তির।’
তিনি খুবির এফএমআরটি ডিসিপ্লিনকে ইন্সটিটিউটে পরিণত করার ব্যাপারে তার পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। প্রতিমন্ত্রী নৌবাহিনীর সহায়তায় সমুদ্র গবেষণায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান।
সেমিনারে প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে বক্তৃতা করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. ফায়েক উজ্জামান।
এফএমআরটি ডিসিপ্লিনের প্রধান প্রফেসর ড. মো. আয়াজ হাসান চিশতীর সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন বিএনএস তিতুমীর-এর ক্যাপ্টেন এম নাইম গোলাম মুক্তাদির।
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন খুবির লাইফ সায়েন্স স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. মো. নাজমুল আহসান। স্বাগত বক্তৃতা করেন সেমিনার বা¯তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আবদুর রউফ। এতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং ছাত্ররা অংশ নেন।
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি সমুদ্র সম্পদ আহরণের জন্য দক্ষ জনবল ও প্রযুক্তির প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে বলেন, সমুদ্রসম্পদ নিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয় কাজ করতে আগ্রহী। তিনি খুবির এফএমআরটি ডিসিপ্লিনকে ইন্সটিটিউটে পরিণত করার ব্যাপারে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়সহ সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন।