নাজিবের বাসভবনে ২৮৪ বাক্স গয়না ১২ ব্যাগ অর্থ

আপডেট: 08:00:22 18/05/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের একটি বিলাসবহুল বাসভবন থেকে ২৮৪ বাক্স ও ১২টির বেশি ব্যাগ ভর্তি  অর্থ ও গয়না উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার কুয়ালালামপুরে ওই ভবনে অভিযান চালানো হয়।
গণমাধ্যম জানায়, নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালে ৭০ কোটি ডলার সরকারি তহবিল তছরুপের অভিযোগ আনা হয়। ওই অভিযোগের তদন্ত অংশ হিসেবে এই অভিযান পরিচালনা করছে পুলিশ।
পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের পরিচালক অমর সিং জানান,  দামি হাতব্যাগ, অলংকার, ঘড়িসহ আরো দামি জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
তিনি বলেন, ‘কী পরিমাণ অলংকার পাওয়া গেছে তা বলতে পারছি না। অলংকারের ব্যাগগুলো বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।’  
এ বিষয়ে দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলছেন, ‘নাজিবের বিরুদ্ধে বিলিয়ন ডলারের কেলেংকারির ঘটনায় জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে এবং তার বিরুদ্ধে তদন্ত করা হবে। যুক্তরাষ্ট্রসহ আরো ছয়টি দেশ এই দুর্নীতির তদন্ত করছে।’       
নাজিব রাজাক যদিও এই দুর্নীতির কথা প্রথম থেকেই অস্বীকার করে আসছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার তার আইনজীবী হারপাল সিং এই অভিযানের নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, ‘হয়রানি করার জন্য এই অভিযান চালানো হচ্ছে।’
অভিযোগ উঠেছে নাজিবের স্ত্রী রোশমা মানসুর বেহিসেবি খরচ করতেন। আর জনগণের তহবিল থেকে এসব অর্থ নেওয়া হতো। রোশমা বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করতেন। সেই সময় দামি ব্যাগ, ঘড়ি, অলংকার কিনে আনতেন। যদিও এসব ব্যাপারে কখনো কিছুই বলেননি নাজিবের স্ত্রী।  
গত বুধবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ১৯৫৭ সাল থেকে ক্ষমতায় থাকা ন্যাশনাল ফ্রন্টের পতন হয়। ওই জোটের নেতৃত্বে ছিলেন বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। নির্বাচনে মাহাথির মোহাম্মদের নেতৃত্বাধীন জোট ‘অ্যালায়েন্স অব হোপ’ জয়লাভ করে। এক সময় এই জোট থেকেই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছিলেন মাহাথির।
নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার পর মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক তার দল এবং জোটের নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।
গত শনিবার মালয়েশিয়ার সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্যদের দেশত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এ ছাড়া সরকারি এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, নাজিবের বিলিয়ন ডলার দুর্নীতির তদন্ত আবার শুরু করা হবে।
সূত্র : রয়টার্স, এনটিভি

আরও পড়ুন