মাঝরাতে তিন ছাত্রীকে হল থেকে তাড়ালেন প্রভোস্ট

আপডেট: 01:46:08 20/04/2018



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হল থেকে রাতের আঁধারে কয়েক ছাত্রীকে বের করে দেওয়ার ঘটনায় হলটির সামনে বিক্ষোভ করছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার (১৯ এপ্রিল) দিবাগত রাত ২টার দিকে অন্তত ২০-৩০ জন  হলটির সামনে জড়ো হয়ে হল প্রশাসনের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন এবং প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবি করেন।
এদিকে, ছাত্রীদের রাতের আঁধারে বের করে দিয়ে নিরাপত্তাহীনতার দিকে ঠেলে দেওয়ার অভিযোগে সুফিয়া কামাল হলের প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবি করে হলটির সামনে রাত দেড়টার দিকে অবস্থান নিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী।
কোটা সংস্কার আন্দোলনে গঠিত বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, ‘কোনো তদন্ত ছাড়াই হলের ছাত্রীদের বের করে দেওয়া হয়েছে। আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছিলাম। প্রশাসন আশ্বাসও দিয়েছিল। কিন্তু প্রশাসন সেই ওয়াদা ভঙ্গ করেছে। এর প্রতিবাদে আমরা শুক্রবার সকালে আমাদের কর্মসূচি ঘোষণা করব। একইসঙ্গে আমরা হল প্রভোস্ট অধ্যাপক সাবিতা রেজওয়ানা রহমানের পদত্যাগের দাবি জানাচ্ছি।’
পরে রাত আড়াইটার দিকে ওই পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুরু জানান, ছাত্রীদের এভাবে হল থেকে বের করে দেওয়ার প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেল চারটায় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করা হবে।
বৃহস্পতিবার রাত দশটা থেকে ১২টা পর্যন্ত অন্তত তিন ছাত্রীকে হল থেকে বের করে দেওয়ার খবর ক্যাম্পাসে জানাজানি হলে রাত দেড়টার কিছু পরে হলটির সামনে আসেন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন ও যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুরু। এরপর একে একে ওই আন্দোলনে জড়িত শিক্ষার্থীরা সেখানে জড়ো হন। তারা ফেসবুকে ওই ঘটনার প্রতিবাদে সবাইকে হলটির সামনে আসার আহ্বান জানান। ক্ষুব্ধ আন্দোলনকারীরা হলের সামনে মিছিল করেন। ‘ভয় দেখিয়ে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না’, ‘রাতের আঁধারে আমার বোন বাইরে কেনো, প্রশাসন জবাব চাই’ ইত্যাদি স্লোগান দেন তারা।
বাইরে এ মিছিলের সময় হলের বিভিন্ন ভবনের ছাত্রীরা জানালা দিয়ে হাত নেড়ে তাদের স্বাগত জানান।

প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবিতে শিক্ষার্থীর অবস্থান
রাতের আঁধারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সুফিয়া কামাল হল থেকে কয়েক ছাত্রীকে বের করে দেওয়ার ঘটনায় হল প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবি করে হলটির সামনে অবস্থান নিয়েছেন ঢাবির এক ছাত্র। বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে ইয়াসিন আরাফাত নামের ওই ছাত্র সুফিয়া কামাল হলের সামনে অবস্থান নেন।
বৃহ্স্পতিবার রাত দশটা থেকে ১২টা পর্যন্ত তিন ছাত্রীকে থেকে বের করে দেয় হল প্রশাসন। সন্ধ্যার পর হলে গিয়ে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক সাবিতা রেজওয়ানা রহমান ছাত্রীদের ডেকে ১০ এপ্রিল রাতের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। এসময় ছাত্রীদের ভয়ভীতি দেখানো ও মামলায় জড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে তাতে তল্লাশি চালানো হয়। পরে একে একে তিন ছাত্রীকে হল থেকে বের করে দেওয়া হয়। ওই তিন ছাত্রী হলেন, শারমীন শুভ, কামরুন্নাহার লিজা ও পারভীন। রিমি নামের আরেক ছাত্রীর বাবাকে ডেকে মেয়েকে আর কোনো আন্দোলনে না জড়াতে সাবধান করা হয়।
এ খবর ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে ঘটনার প্রতিবাদে ইয়াসিন আরাফাত সুফিয়া কামাল হলের সামনে অবস্থান নেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী ছাত্রীদের রাত সাড়ে নয়টার পর হল থেকে বের হওয়া নিষেধ। কিন্তু প্রভোস্ট নিজেই গভীর রাতে মেয়েদের বের করে দিয়ে তাদের নিরাপত্তাহীনতার মুখে ফেলছেন।’
এর প্রতিবাদে তিনি প্রভোস্ট অধ্যাপক সাবিতা রেজওয়ানা রহমানের পদত্যাগ দাবি করেন। প্রভোস্ট পদত্যাগ না করা পর্যন্ত তিনি অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ারও ঘোষণা দেন।
আরাফাত বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি এফ রহমান হলের আবাসিক ছাত্র।
সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

আরও পড়ুন