তরুণীর যৌনাঙ্গে ইয়াবা!

আপডেট: 03:27:47 09/11/2018



img

স্টাফ রিপোর্টার : গোপনাঙ্গে বিশেষ কায়দায় লুকিয়ে রাখা অবস্থায় এক হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ রিমা বেগম (২০) নামে এক তরুণীকে আটক করেছে পুলিশ। তিনি যশোর শহরের চাঁচড়া রায়পাড়া এলাকার সোহেল হোসেনের স্ত্রী।
তবে ওই ইয়াবা ট্যাবলেট কেনাবেচায় জড়িত তিনজন পালিয়ে গেছেন বলে পুলিশ জানায়।
যশোর কোতয়ালী থানার এসআই শাহিদুল আলম বলেন, বুধবার রাতে গোপন সূত্রে সংবাদ আসে যে, চাঁচড়া রায়পাড়া এলাকার জানু বেগমের বাড়ির দ্বিতীয়তলায় ইয়াবা কেনাবেচা হচ্ছে। পুলিশ রাত পৌনে আটটার দিকে ওই বাড়িতে অভিযান চালায়। কিন্তু অভিযানের সংবাদ পেয়ে আগেই তিনজন পালিয়ে যান। ওই সময় বাড়িতে অবস্থানকারী রিমাকে আটক করা হয়।
থানার ওসি অপূর্ব হাসান জানিয়েছেন, রিমাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। কিন্তু তিনি কিছুই স্বীকার করছিলেন না। পরে নারী পুলিশ কনস্টেবল দিয়ে তার শরীর তল্লাশি করা হয়। এক পর্যায়ে তিনি স্বীকার করেন, তার কাছে ইয়াবা ট্যাবলেট আছে। তার যৌনাঙ্গের মধ্যে বিশেষ কায়দায় ইয়াবা ট্যাবলেট রাখা ছিল। ইয়াবা ট্যাবলেট ৫০টি করে একটি ছোট প্লাস্টিকের প্যাকেটে রেখে সেগুলো ভালো করে টেপ দিয়ে মোড়ানো হয়। পরে সেগুলো কনডমের মধ্যে পুরে যৌনাঙ্গের মধ্যে লুকিয়ে রাখা হয় যাতে শরীর তল্লাশি করেও সেগুলো উদ্ধার না করা যায়। কিন্তু পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে রিমা স্বীকার করতে বাধ্য  হন। তিনি নিজেই ইয়াবা ট্যাবলেট বের করে দেন।
পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনায় রিমাসহ চারজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। পলাতক তিন আসামি হলেন, শহরের নীলগঞ্জ এলাকার মহাদেবের ছেলে রুদ্র, বালিয়াডাঙ্গা মান্দারতলা এলাকার কাউছার হোসেনের ছেলে মামুন এবং নীলগঞ্জ সাহাপাড়া এলাকার বাবুর ছেলে পারভেজ।

আরও পড়ুন